বকশীগঞ্জে সার জব্দের ঘটনায় গ্রেপ্তার ৩

১৬ জানুয়ারি ২০২১

বকশীগঞ্জ (জামালপুর) সংবাদদাতা

বকশীগঞ্জে বিএডিসির ৪০০ বস্তা টিএসপি ও পটাশ সার জব্দের ঘটনায় স্বেচ্ছাসেবক দল নেতাসহ আটজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এর মধ্যে তিনজনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। শুক্রবার গ্রেপ্তার জাহিদুল ইসলাম, ট্রাকচালক বাবুল মিয়া ও হেলপার নুর মোহাম্মদকে আদালতে সোপর্দ করেছে বকশীগঞ্জ থানা পুলিশ।

জানা যায়, জামালপুরের মেলান্দহ বিএডিসির গুদাম থেকে প্রতিবেশী রৌমারী উপজেলার রতন ট্রেডার্সের মালিক সুরুজ্জামান সরকার নির্ধারিত মূল্যে ৪০০ বস্তা টিএসপি ও পটাশ সার ক্রয় করেন। সব সার ১৩ জানুয়ারি মেলান্দহ থেকে একটি ভাড়া করা ট্রাকে (ঢাকা-মেট্রো-২২-৭৮৬৫) রৌমারী উপজেলায় পাঠানো হয়। কিন্তু ট্রাকচালক বাবুল মিয়া রৌমারী না গিয়ে সার বকশীগঞ্জ উপজেলার নতুন টুপকারচর গ্রামের বাসিন্দা আবুল হোসেনের ছেলে সার ব্যবসায়ী শহিদুল হক দুলাল মিয়া ও তার ছোট ভাই জাহিদুল ইসলাম মঞ্জুর কাছে বিক্রি করে দেন। শহিদুল হক দুলাল ও জাহিদুল ইসলাম মঞ্জু পাঁচ লাখ টাকা মূল্যের সার মাত্র ৪০ হাজার টাকায় কিনে নিয়ে গুদামজাত করেন। সার মালিক ঘটনার খবর পেয়ে বিষয়টি বকশীগঞ্জ থানা পুলিশকে জানান। পুলিশ গত বৃহস্পতিবার বিকেলে নতুন টুপকারচর গ্রামে অভিযান চালায়। অভিযানের একপর্যায়ে পুলিশ দুলাল মিয়া ও জাহিদুল ইসলাম মঞ্জুর গুদাম ঘর থেকে সারগুলো জব্দ করে। এ ঘটনায় জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য শহিদুল হক দুলালসহ আটজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়।

ওসি শফিকুল ইসলাম জানান, আটজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। তিনজনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ ও অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২১

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com