ভুয়া জন্মসনদে লাকিংমে চাকমার বিয়ে, সেই কাজির অফিসে জেলা রেজিস্ট্রার

প্রকাশ: ০৮ ফেব্রুয়ারি ২১ । ১৬:৪৫

কুমিল্লা সংবাদদাতা

লাকিংমে চাকমা-ফাইল ছবি

কক্সবাজারের টেকনাফের মেয়ে লাকিংমে চাকমাকে অপহরণের পর কুমিল্লায় নিয়ে এসে বাল্যবিয়েতে বাধ্য করা হয়েছিলো। কোন প্রকার যাচাই না করেই ভুয়া জন্মসনদে লাকিংমের বিয়ে পড়ান কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাজি নজরুল ইসলাম। গত ২৪ জানুয়ারি ওই কাজির সনদপত্র বাতিল ও তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে জেলা রেজিস্ট্রারের কাছে স্মারকলিপি দেওয়া হয়। বেশ কয়েকটি মানবাধিকার সংগঠনের পক্ষে বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘের উপ-পরিচালক শাহনাজ সুমী স্বাক্ষরিত ওই স্মারকলিপিটি স্থানীয় প্রতিনিধির মাধ্যমে সেদিন জেলা রেজিস্ট্রার মো.আনোয়ারুল হক চৌধুরীর কাছে দেওয়া হয়।

সোমবার সকালে ওই অভিযোগের তদন্তে কাজি নরুল ইসলামের অফিসে যান জেলা রেজিস্ট্রার মো.আনোয়ারুল হক। এ সময় তিনি লাকিংমে চাকমার বিয়ের সকল কাগজপত্র দেখেন এবং ঘটনার বিস্তারিত জানার চেষ্টা করেন।

দুপুরে এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা রেজিস্ট্রার মো.আনোয়ারুল হক বলেন, আমাদের তদন্ত এখনো পুরোপুরি শেষ হয়নি। আরও কিছু কাজ বাকি রয়েছে। সেগুলো শেষ করে এ বিষয়ে বিস্তারিত লিখে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে।

তিনি আরো বলেন, আমরা কাজিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারি না। এ ব্যাপারে সুপারিশ করতে পারি।      

উল্লেখ্য, গত বছরের ৫ জানুয়ারি টেকনাফ উপজেলার শিলখালি চাকমাপাড়া থেকে অপহৃত হয় লাকিংমে চাকমা। জন্মসনদ অনুযায়ী সেদিন তার বয়স ছিলো ১৪ বছর ১০ মাস। অপহরণের পর ভুয়া জন্মসনদ দিয়ে ধর্মান্তর ও বিয়েতে বাধ্য করার দায়ে অভিযুক্ত আতাউল্লাহ ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে লাকিংমেকে হত্যা কিংবা আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। অপহরণের প্রায় এক বছর পর গত বছরের ৯ ডিসেম্বর লাকিংমে চাকমাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে মৃত অবস্থায় পায় তার পরিবার। এরপর টানা ২৬ দিন লাকিংমের বাবা লালাঅং চাকমা ও কথিত স্বামী আতাউল্লাহর মরদেহ সৎকারের দাবিতে লাশটি ওই হাসপাতাল মর্গে পড়ে ছিল । পরে বয়স বিবেচনায় অপ্রাপ্তবয়স্ক বলে প্রমাণিত হওয়ায় আদালতের নির্দেশে মরদেহ বুঝে পান লাকিংমের বাবা লালাঅং চাকমা। মৃত্যুর ১৩ দিন আগে কিশোরী লাকিংমে আরেকটি শিশুর জন্ম দিয়ে গেছে।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com