‌'মান্না ভাই মারা যাওয়ায় দেশের ফিল্ম ইন্ডাষ্ট্রিও মরে গেছে'

প্রকাশ: ১০ ফেব্রুয়ারি ২১ । ১৬:৪৭ | আপডেট: ১০ ফেব্রুয়ারি ২১ । ১৬:৫১

অনিন্দ্য মামুন

বাংলা চলচ্চিত্রের পরিচিত মুখ আসিফ ইকবাল। প্রয়াত জনপ্রিয় নায়ক মান্নার খুব ঘনিষ্ঠ ছিলেন তিনি। মান্না তার আপন বড় ভাইয়ের মতো বলে দাবি করেন তিনি। মান্না মারা যাওয়ার পর বাংলা সিনেমা ইন্ডাষ্ট্রিও মারা গেছে বলে মন্তব্য তার। বিষয়টি মান্নার মৃত্যুর দিনেই অনুভব করেছেন তিনি। 

কথায় কথায় আসিফ ইকবাল বলেন, 'এফডিসি আজ শ্মশানের মতো হয়ে গেছে। মান্না ভাই যখন জিবিত থাকতে আর কাধে হাত রেখে বলেছিলেন, আমাকে অনেক খারাপ জানে, আমাকে মারতে চায়, মেরে ফেলার হুমকী দেয়। কিন্তু যেদিন আমি থাকবো না তখন এই এফডিসিকে শ্মশান মনে হবে। আমি বলেছিলাম মান্না ভাই অনেকেই তো মরে গেছেন এফডিসি তো শ্মশান হয়ে যায়নি। তখন মান্না ভাই বলেছিলেন আামি মারা গেলে এমনটি হবে। কারণ আমি আমার পরিবার রেখে সকাল থেকে রাত অব্দি চলচ্চিত্র নিয়ে ভাবি,আমার ধ্যান ধারণা পুরোটাই সিনেমা। যখন থাকবো না তখন এটা বুঝবি। এখন সেটা বুঝতেছি। মান্না ভাই নেই আমাদের এফডিসি এখন শ্মশানের মতো।' 

এখন যারা বলে বেড়ান চলচ্চিত্র টেনে নিয়ে যাচ্ছেন। তাদের উদ্দেশ্যে আসিফ বলেন, মৃত ইন্ডাষ্ট্রি টেনে নিয়ে কোনো লাভ নেই। তারা চলচ্চিত্রের স্বার্থে কোনো ছাড় দিতে নারাজ। অথচ মান্না  মান্না ভাই প্রতিনিয়ত  ইন্ডাষ্ট্রি নিয়ে চিন্তা করতেন। কিভাবে সিনেমা বাড়বে, কিভাবে ভালো সিনেমা নির্মাণ হবে।  মান্না ভাই যদি ইচ্ছে করতেন ওই সময়ে তিনি প্রতি ছবিতে ২০ লাখ টাকা পরিশ্রমিক নেবেন, ৩০ লাখ টাকা নেবেন আমরা যারা প্রযোজক ছিলাম দিতে বাধ্য ছিলাম। কারণ তিনি 'ওয়ানম্যান শো' ছিলেন।  কিন্তু মান্না ভাই তা না করে তিনি পারিশ্রমিক নিতেন যেটা না নিলেই নয়। কম পারিশ্রমিক নিয়েছেন যেনো বেশি বেশি ছবি হয়।

নায়ক মান্নার সঙ্গে আসিফ ইকবলের শেষ ছবি ‌'পিতা মাতার আমানত'। এটাই মান্নার অভিনীত শেষ ছবি বলে দাবি তার। এর বাইরে আরও অনেক ছবিই ছিলো অসম্পূর্ণ। পরে সেগুলো শুটিং শেষ করে মুক্তি দেয়া হয়। সর্বশেষ চুক্তিবদ্ধ হওয়া ছবি ছিলো 'পিতা মাতার আমানত'।  

মান্নাকে নিয়ে তিনি আরও বলেন, মান্না ভাই মারা যাওয়ার পর ফিল্ম ইন্ডাষ্ট্রিও মরে গেছে। যেদিন মান্না ভাই মারা যান। তার লাশ এফডিসিতে রাখা হলে লাশ রাখার স্টেজের পাশের একটি খুটি হেলে গিয়েছিলো আমার বন্ধু চলচ্চিত্র অভিনেতা সানু তখন বলেছিলো এই খুটি হেলে পড়া মানে আমাদের চলচ্চিত্র ইন্ডাষ্ট্রিও আজ থেকে হেল পড়লো। সত্যি সত্যিই তাই হয়েছে।

এই আসিফের হাত ধরেই চলচ্চিত্র জগতে এসেছেন বর্তমানে বাংলাদেশ শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান। চলচ্চিত্র ও বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেছেন এই অভিনয়শিল্পী।

বর্তমান ব্যস্ততা নিয়ে আসিফ ইকবাল বলেন, 'বর্তমানে বাসায়ই আছি। আমার এক বছরের ছোট একটি বাচ্চা আছে, ওর নাম আলিফ। আপাতত ওকে নিয়েই সময় পার করছি। আর করোনাকালীন পরিস্থিতি অতিক্রম করলে আর সিনেমা যদি হয়, তাহলে হয়তো কাজ করব। আল্লাহর কাছে বলছি, আল্লাহ যদি তৌফিক দেন তাহলে কাজ শুরু করব আবার কাজ।' 

করোনার সময় অসহায় শিল্পীদের পাশে ছিলেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, 'করোনার সময় দরিদ্র শিল্পীদের খোঁজখবর নিয়ে তাদের বাসায় বাসায় খাবার পৌঁছে দিয়েছি। আমার ছোট ভাই জায়েদ খান। তাকে নিয়ে আমি গর্ব করি। তাকে আমি সিনেমায় এনেছি। করোনা পরিস্থিতিতে ওর সঙ্গে মিলে আমরা খোঁজখবর নিয়ে যার যা লাগে, মেডিসিন, খাবার পৌঁছে দিয়েছি। যেহেতু আমার বড় ভাই মিশা ভাই বিদেশে থাকেন, সেহেতু তার পরামর্শে আমরা করোনার সময় কাজ করেছি।'

চলচ্চিত্র নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওপর আস্থা রেখে এই অভিনেতা বলেন, 'আমার মা সমতূল্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তিনি শিল্পীদের খোঁজখবর নেন। অসহায় শিল্পীদের পাশে দাঁড়ান, তিনি যেভাবে আমাদের পাশে দাঁড়ান তাতে করে আমরা বিশ্বাস করি করোনা পরিস্থিতি পেরিয়ে গেলে নিশ্চই তিনি আমাদের চলচ্চিত্রকে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য কাজ করবেন। আমি বিশ্বাস করি, আমার মায়ের সমতুল্য প্রধানমন্ত্রী আমাদের চলচ্চিত্রের পাশে দাঁড়াবেন। আমি মনে করি, আমাদের প্রধানমন্ত্রী তাঁর ক্যাবিনেট মন্ত্রী ও এমপিদের নিয়ে যেভাবে এগোচ্ছেন, আশা করছি সামনে আরো ভালোভাবে তিনি এগোবেন, কারণ প্রধানমন্ত্রী আমাদের মা সমতুল্য, গাছ বাঁচলে ফল পাব। তিনি আমাদের গাছ।'

আসিফ ইকবাল অভিনীত উল্লেখযোগ্য ছবি:

পাগল মানুষ, ভালোবাসতে মন লাগে, ভালোবাসার রঙ, তোর কারণে বেঁচে আছি , কিং খান,  প্রিয়া আমার জান, একবার বলো ভালোবাসি, বন্ধু তুমি শত্রু তুমি, মনের ঘরে বসত করে, অংক, আমার স্বপ্ন আমার সংসার, এক জবান, প্রেমে পড়েছি, জনম জনমের প্রেম, ভালোবেসে মরতে পারি, টাকার চেয়ে প্রেম বড়, প্রেম কয়েদী, জন্ম তোমার জন্য, ভয়ংকর হামলা, আসলাম ভাই, যদি বউ সাজো গো, তুমি স্বপ্ন তুমি সাধনা, শান্ত কেন অশান্ত, মেশিনম্যান, জ্বলন্ত নারী, যমজ, এনকাউন্টার, নজর, অলরাউন্ডার, কঠিন প্রতিজ্ঞা, ব্যারিকেড, গাদ্দারী, জাল, ওরা কারা, সন্ত্রাসী মুন্না ও রংবাজ বাদশা।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com