শেবাচিম: নিয়োগ-বাণিজ্যের অভিযোগে পরিচালকের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশ: ১০ ফেব্রুয়ারি ২১ । ২২:৪১ | আপডেট: ১০ ফেব্রুয়ারি ২১ । ২৩:১৯

বরিশাল ব্যুরো

বরিশাল শেরেবাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতালের পরিচালক ডা. বাকির হোসেনের বিরুদ্ধে নিয়োগ-বাণিজ্যের অভিযোগে মামলা হয়েছে। সম্প্রতি ৩২ জন কর্মচারী নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি দেয় শেবাচিম কর্তৃপক্ষ। 

ওই নিয়োগ প্রক্রিয়ায় বাণিজ্য হচ্ছে অভিযোগ করে তা স্থগিত চেয়ে বুধবার বরিশাল সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে মামলা হয়েছে।

বুধবার মামলা করেন ওই নিয়োগের লিখিত পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ দুই চাকরিপ্রত্যাশী সিরাজুল ইসলাম ও জুয়েনা নীতি। মামলা সূত্রে জানা যায়, পাবনা জেলার বাসিন্দা ওই দুই প্রার্থী শেবাচিম হাসপাতালের ফার্মাসিস্ট পদে আবেদন করেছিলেন। গত শনিবার অনুষ্ঠিত লিখিত পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ হন তারা। তাদের অভিযোগ, পরিচালক তার পছন্দের প্রার্থীদের নিয়োগ নিশ্চিত করতে তাদের অনুত্তীর্ণ দেখানো হয়েছে। তাদের পক্ষে মামলা করেন আইনজীবী আজাদ রহমান।

আইনজীবী আজাদ বলেন, পরিচালক বাকির হোসেনকে প্রধান বিবাদী করে মামলা করা হয়েছে। আজ ওই মামলার শুনানি হবে। তিনি জানান, শেবাচিম হাসপাতালে তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির ১৩ ক্যাটাগরিতে ২১ জন কর্মচারী নিয়োগের জন্য গত বছরের ২৩ ডিসেম্বর বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়। এতে বরিশাল বিভাগের বরিশাল, ঝালকাঠি, পিরোজপুর, পটুয়াখালী, বরগুনা, মাদারীপুর ও বাগেরহাট জেলার বাসিন্দাদের বাদ দেওয়া হয়। যে কারণে বিভাগের মধ্যে শুধু ভোলা জেলার প্রার্থীরা আবেদনের সুযোগ পান। তবে জালিয়াতির মাধ্যমে অন্য জেলার বাসিন্দা দেখিয়ে হাসপাতালের কয়েকজন কর্মকর্তার স্বজনদের আবেদন করার সুযোগ দেওয়া হয়েছে।

আজাদ রহমান আরও বলেন, এ নিয়োগ-বাণিজ্যের সঙ্গে হাসপাতালের পরিচালক ছাড়াও প্রশাসনিক কর্মকর্তা ও প্রধান সহকারী জড়িত রয়েছেন। বৃহস্পতিবার শুনানি শেষে নিয়োগ প্রক্রিয়ায় স্থগিতাদেশ দেওয়া হবে বলে আশাবাদী আমি।


© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com