এনআরবি ব্যাংক পরিচালকের সম্পদের হিসাবে যত গরমিল

২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১

হকিকত জাহান হকি

এম বদিউজ্জামান

নিজেদের হিসাবেই এনআরবি ব্যাংকের পরিচালক এম বদিউজ্জামান ও তার দুই স্ত্রীর মোট সম্পদ ৬০ কোটি ৫৯ লাখ টাকার। সম্প্রতি তারা সম্পদের এই হিসাব বিবরণী জমা দিয়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক)।

তবে দুদক সূত্র জানাচ্ছে, জমা দেওয়া সম্পদ বিবরণীতে তারা তিনজন গুরুত্বপূর্ণ অনেক সম্পদের মূল্য উল্লেখ করেননি। জমিসহ অন্যান্য সম্পদের মূল্যও কম দেখানো হয়েছে। হিসাবগুলো যাচাই করা হলে নামে-বেনামে বদিউজ্জামানের সম্পদের পরিমাণ শতকোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে।

সম্পদ বিবরণীর হিসাব অনুযায়ী, বদিউজ্জামান স্থাবর-অস্থাবর ৪৮ কোটি ৬৮ লাখ ৭০ হাজার ২৬৮ টাকার, প্রথম স্ত্রী নাসরিন জামান ৯০ লাখ ৪৩ হাজার ৩৮৩ ও দ্বিতীয় স্ত্রী তৌহিদা সুলতানা কমবেশি ১১ কোটি টাকার মতো সম্পদের মালিক। তিনজনের মোট স্থাবর-অস্থাবর সম্পদ ৬০ কোটি ৫৯ লাখ ১৩ হাজার ৫৫১ টাকার। তাদের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার, প্রতারণা ও দুর্নীতির মাধ্যমে নামে-বেনামে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও অর্থ পাচারের অভিযোগ অনুসন্ধান করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে পরিচালক বদিউজ্জামানের দুটি মোবাইল নম্বরে বারবার ফোন করা হলে বন্ধ পাওয়া যায়। নির্ভরযোগ্য একটি সূত্র জানায়, প্রথম স্ত্রী নাসরিন জামানকে সঙ্গে নিয়ে বর্তমানে তিনি সিঙ্গাপুরে বসবাস করেন। দ্বিতীয় স্ত্রী তৌহিদা সুলতানা দেশে আছেন।

বদিউজ্জামান ও তার প্রথম স্ত্রী নাসরিন জামানের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ অনুসন্ধান করছেন দুদকের প্রধান কার্যালয়ের উপসহকারী পরিচালক মোহাম্মদ শাহজাহান মিরাজ। দ্বিতীয় স্ত্রী তৌহিদা সুলতানার বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ অনুসন্ধান করছেন কমিশনের প্রধান কার্যালয়ের উপসহকারী পরিচালক সহিদুর রহমান।

বদিউজ্জামানের স্থাবর সম্পদ :বদিউজ্জামানের মোট সম্পদের মধ্যে স্থাবর চার কোটি ৬৩ লাখ ৮২ হাজার ৭৩০ টাকার সম্পদ। অস্থাবর সম্পদ ৪৪ কোটি চার লাখ ৮৭ হাজার ৫৩৮ টাকার। স্থাবর সম্পদের মধ্যে রয়েছে জমি, বহুতল ভবন, পুকুর, বাড়ি।

সম্পদ বিবরণীতে দেখা গেছে, চারতলা বাণিজ্যিক ভবনের ১৪.১৭ শতাংশ শেয়ারের মূল্য ৮০ লাখ চার হাজার ৬৫৫ টাকা দেখানো হয়েছে। দুই হাজার ছয়শ বর্গফুটের ফ্ল্যাটের মূল্য উল্লেখ করা হয়নি। ২৬.৫০ শতাংশ নাল জমির মূল্য ২০ হাজার টাকা, ১৫.৫০ শতাংশ নাল জমির মূল্য ৩৮ হাজার ৫০০, ২৩ শতাংশ নাল জমির মূল্য ৬০ হাজার, ৯৮ শতাংশ নাল জমির মূল্য ৪১ হাজার, ৫৪ শতাংশ নাল জমির মূল্য ২২ হাজার, ২৬ শতাংশ নাল জমির মূল্য পাঁচ হাজার ৫০০, ৯১ শতাংশ নাল জমির মূল্য ৩৩ হাজার, ২৬ শতাংশ নাল জমির মূল্য ১১ হাজার, ১৮ শতাংশ নাল জমির মূল্য আট হাজার ৮০০, ৯ শতাংশ নাল জমির মূল্য পাঁচ হাজার ৫০০, ২২ শতাংশ নাল জমির মূল্য পাঁচ লাখ ৭০ হাজার ও ১৮.৫০ শতাংশ নাল জমির মূল্য দুই লাখ ২০ হাজার টাকা দেখানো হয়েছে।

দুই তলাবিশিষ্ট একটি বাড়ি, পুকুর, ভিটি ও নাল শ্রেণির জমি উল্লেখ করা হলেও এসবের মূল্য দেখানো হয়নি। ৭৯ শতাংশ নাল জমির মূল্য দেখানো হয়নি। এক হাজার ২৫০ বর্গফুট আয়তনের চারটি ফ্ল্যাট, ৩ শতাংশ জমির মূল্য উল্লেখ করা হয়নি। একটি ফ্ল্যাটের মূল্য দেখানো হয়েছে ২২ লাখ ২৪ হাজার ২০০ টাকা। ১৪ কাঠা জমিতে নির্মিত ৯ তলা ভবনের ফ্ল্যাটগুলোর মূল্য দেখানো হয়নি। এ ক্ষেত্রে জমির মূল্য বাবদ দুই কোটি ৪৫ লাখ ৫৩ হাজার ৫৮৫ টাকা উল্লেখ করা হয়। ৩২ শতাংশ জমিতে একটি বাড়ির মূল্য ৯৫ লাখ চার হাজার ৯৯০ টাকা উল্লেখ করা হয়েছে।

বদিউজ্জামানের অস্থাবর সম্পদ :বদিউজ্জামানের অ্যাডভান্স হোমস (প্রা.) লিমিটেড ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মূলধন এক কোটি টাকা, বাংলাদেশ-সিঙ্গাপুর ইনভেস্টমেন্ট অ্যান্ড টেকনোলজিস লিমিটেডের ১৪ লাখ, বাংলাদেশ-সিঙ্গাপুর ডেভেলপমেন্ট লিমিটেডের ২০ লাখ টাকা; এনআরবি ব্যাংক, সিমপ্লিট্রির মূলধন ২০ কোটি ৯৬ লাখ ৯২ হাজার ৮০০ টাকা উল্লেখ করা হয়েছে। ঢাকা মেট্রো ঘ-১৫-৬৬৫৩ গাড়ির মূল্য এক কোটি ৯ লাখ টাকা উল্লেখ করা হয়েছে। অ্যাডভান্স হোমস (প্রা.) লিমিটেডকে ঋণ দেওয়া হয় ১৩ লাখ ৬৮ হাজার টাকা।

সম্পদ বিবরণীতে ইস্টার্ন ব্যাংকের ঢাকার বসুন্ধরা শাখায় সঞ্চয়ী একটি হিসাবে ৫৩ হাজার ৯৮৪ টাকা, একই শাখার আরও দুটি হিসাবে পাঁচ হাজার ৩২৯ ও ৭৯৯ টাকা জমা দেখানো হয়েছে। এনআরবি ব্যাংক ঢাকার গুলশান শাখার একটি হিসাবে ২১ হাজার ৪১৭ টাকা জমা দেখানো হয়। এ ছাড়া হাতে নগদ দেখানো হয় ছয় কোটি ৯৫ লাখ ৮৩ হাজার ২০৯ টাকা।

স্ত্রী নাসরিন জামানের স্থাবর সম্পদ :স্ত্রী নাসরিন জামানের সম্পদ বিবরণীতে ২৩ শতাংশ নাল জমির মূল্য ছয় লাখ ৬০ হাজার টাকা, ৩১.২৫ শতাংশ নাল জমির মূল্য আট লাখ ২৫ হাজার ও ১৩ শতাংশ নাল জমির মূল্য এক লাখ ৬০ হাজার টাকা দেখানো হয়েছে। এক একর বিলীন শ্রেণির জমির মূল্য পাঁচ লাখ ৭০ হাজার টাকা উল্লেখ করা হয়েছে।

বিবরণীতে চার তলাবিশিষ্ট একটি বাণিজ্যিক ভবনের ৪৫ শতাংশ শেয়ারের মূল্য উল্লেখ করা হয়নি। দুই হাজার ছয়শ বর্গফুটের একটি আবাসিক ফ্ল্যাটের মূল্য উল্লেখ করা হয়নি।

নাসরিন জামানের অস্থাবর সম্পদ :অ্যাডভান্স হোমস (প্রা.) লিমিটেডে নাসরিন জামানের ব্যবসায়িক মূলধন ২০ লাখ টাকা, বাংলাদেশ-সিঙ্গাপুর ইনভেস্টমেন্ট অ্যান্ড টেকনোলজিস লিমিটেডে ১১ লাখ ও বাংলাদেশ-সিঙ্গাপুর ডেভেলপমেন্ট লিমিটেডে ১৫ লাখ টাকা দেখানো হয়েছে। আসবাবপত্রের মূল্য উল্লেখ করা হয়েছে এক লাখ ছয় হাজার পাঁচশ টাকা।

এ ছাড়া ইস্টার্ন ব্যাংকের ঢাকার বসুন্ধরা শাখার একটি হিসাবে ৮০ হাজার ৮২৪ টাকা, এনআরবি ব্যাংকের একটি শাখায় ১১ হাজার ৬৬৪, ইসলামী ব্যাংকের একটি শাখায় ১৬ হাজার ৬৯৫ ও নগদ ২০ লাখ ১২ হাজার ছয়শ টাকা জমা দেখানো হয়েছে।

তবে বদিউজ্জামানের দ্বিতীয় স্ত্রীর সম্পদ বিবরণী পাওয়া যায়নি। নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে, তার স্থাবর-অস্থাবর সম্পদ কমবেশি ১১ কোটি টাকার।

সম্পদ সম্পর্কিত আরও তথ্য :দুদকের বাইরে একটি নির্ভরযোগ্য অনুসন্ধান থেকেও বদিউজ্জামানের সম্পদের নানা তথ্যভিত্তিক প্রতিবেদন পাওয়া গেছে। দুদক এই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা তথ্যও যাচাই করবে।

বসুন্ধরা আবাসিক প্রকল্প :রাজধানীর বারিধারার বসুন্ধরা আবাসিক প্রকল্পের এফ ব্লকের ১৮ নম্বর রোডে বদিউজ্জামানের একটি বহুতল বাড়ি রয়েছে, যার আনুমানিক মূল্য কমবেশি ১০ কোটি টাকা। বসুন্ধরা প্রকল্পের এ ব্লকে মেইন রোডে পাঁচ কাঠা জমির ওপরে ১৫ নম্বর প্লটে সাততলা বাণিজ্যিক ভবন রয়েছে। ভবনটির মালিকানায় রয়েছেন বদিউজ্জামানসহ তার পরিবারের সদস্যরা। ভবনটির আনুমানিক মূল্য ২০ কোটি টাকা। বসুন্ধরা প্রকল্পের এ ব্লকের ৮ নম্বর প্লটে পাঁচ কাঠা জমিতে বহুতল বাণিজ্যিক ভবন রয়েছে। যা বদিউজ্জামান তিন কোটি টাকায় কিনেছিলেন। পরে তিনি ভবনটি ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের কাছে ১৬ কোটি টাকায় বিক্রি করে দেন।

গুলশান :রাজধানীর গুলশান ১ নম্বর রেইন্স ওয়াটার ফ্রন্ট আবাসিক ভবনে প্রায় তিন হাজার একশ বর্গফুটের প্রায় সাত কোটি টাকা মূল্যের ফ্ল্যাটের মালিক বদিউজ্জামান।

বনানী :বনানীর এ ব্লকের ৭৭/এ নম্বর প্লটে অ্যাডভান্স রাইটস নামে বদিউজ্জামানের বহুতল আবাসিক ভবন রয়েছে, যার বর্তমান মূল্য প্রায় ৬৫ কোটি টাকা।

জোয়ারসাহারা :রাজধানীর জোয়ারসাহারা মৌজায় জগন্নাথপুরে ১১ কাঠা জমিতে নির্মিত অ্যাডভান্স রেইনবো নামে ৯ তলা আবাসিক ভবনটির মালিক বদিউজ্জামান, যার আনুমানিক মূল্য ১৫ কোটি টাকা। জোয়ারসাহারার ভাটারা থানায় ১৪ কাঠা জমিতে নির্মিত অ্যাডভান্স প্যারাডাইস নামে ৯ তলা আবাসিক ভবনে এক হাজার ৪৫০ বর্গফুটের ফ্ল্যাটও রয়েছে তার।

উত্তরা :রাজধানীর উত্তরার ১৩ নম্বর সেক্টরের ৩ নম্বর রোডের ৬ নম্বর প্লটে বহুতল ভবনের আনুমানিক বাজারমূল্য ১০ কোটি টাকা।

ময়মনসিংহ :ময়মনসিংহ জেলার ভালুকা থানায় অ্যাডভান্স ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক নামের প্রকল্পটির ১৪৮ বিঘা জমি ও সব স্থাপনার আনুমানিক মূল্য প্রায় ১০ কোটি টাকা। এটি বদিউজ্জামানসহ তার ছেলের নামে কিনে ২০১৩ সালে লাবিব গ্রুপের কাছে ৬০ কোটি টাকায় বিক্রি করা হয়।

গোপালগঞ্জ :গোপালগঞ্জ জেলা সদরে প্রায় ৩৫০ বিঘা জমিতে অ্যাডভান্স নিরালা ও অ্যাডভান্স সুগন্ধা নামে বদিউজ্জামানের আবাসিক প্রকল্প রয়েছে। গোপালগঞ্জ সদরে সার্কিট হাউস রোডে নিজ নামে বিলাসবহুল আবাসিক বাড়ি রয়েছে, যার বর্তমান বাজারমূল্য প্রায় ১০ কোটি টাকা।

অস্থাবর সম্পদ :বদিউজ্জামানের নামে ফিনিক্স ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডের প্রায় ২০ কোটি টাকার শেয়ার রয়েছে। এনআরবি ব্যাংক থেকে প্রায় ৩০ কোটি টাকার শেয়ার কেনা হয়েছে। বিভিন্ন ব্যাংকে বদিউজ্জামান ও তার পরিবারের সদস্যদের নামে বিরাট অঙ্কের নগদ অর্থ জমা রয়েছে।





© সমকাল ২০০৫ - ২০২১

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ (প্রিন্ট), +৮৮০১৮১৫৫৫২৯৯৭ (অনলাইন) | ইমেইল: samakalad@gmail.com (প্রিন্ট), ad.samakalonline@outlook.com (অনলাইন)