মিসরে 'সোনালি শহর'

প্রকাশ: ১০ এপ্রিল ২১ । ০১:৩৫

অনলাইন ডেস্ক

ছবি: ডেইলি মেইল

বহু প্রত্নতত্ত্ব নিদর্শন আর প্রাচীন সভ্যতার ওপর দাঁড়িয়ে মিসর। খননে মাঝেমধ্যেই বেরিয়ে আসছে এর নমুনা। এক শতাব্দী আগে দেশটির প্রাচীনতম জনবহুল শহর লাপারে মিলেছিল এক বালক ফারাওয়ের সমাধি। 

এবার এর পাশেই 'সোনালি শহর' আবিস্কার হয়েছে। অসাধারণ সব কারুকার্য ও নকশায় নির্মিত শহরটি ছিল অত্যন্ত পরিকল্পিত এবং নিরাপত্তার চাদরে ঘেরা। চারদিকে আঁকাবাঁকা দেয়াল এবং রাস্তাঘাট ও নিত্যপ্রয়োজনীয় নানা উপকরণ-সরঞ্জামে পূর্ণ সব ঘর মিলেছে প্রায় অক্ষত। বেরিয়ে এসেছে সে সময়ের বেকারি, ওয়ার্কশপ, প্রাণী কবর, অলংকার সামগ্রী, পাত্র, কাদামাটির তৈরি ইট, বাদশাহ তৃতীয় আমেনহোতেপের ব্যবহূত সিলসহ নানা সামগ্রী।

ছবি: ডেইলি মেইল 

আতিন নামে পরিচিত ওই ফারাও শহরটি নির্মিত হয়েছিল খ্রিষ্টপূর্ব ১৩৯০ সালের দিকে। ওই সময় অঞ্চলটি শাসন করতেন বাদশাহ তৃতীয় আমেনহোতেপ। পরে দাদার নির্মিত শহরটি ব্যবহার করেছিলেন বাদশাহ তুতেন খামেন। 

মিসরের প্রত্নতত্ত্ব গবেষক দলের প্রধান জাহি হওয়াজ এটিকে সোনালি শহর ঘোষণা দিয়ে বলেন, 'লাপার রাজা-বাদশাহদের উপত্যকা এবং প্রাচীন নিদর্শনের জন্য বেশ পরিচিত।' 

ছবি: ডেইলি মেইল 

যুক্তরাষ্ট্রের জন্স হপকিন্স ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক বেটসি ব্রায়ান বলেন, তুতেন খামেনের সমাধি আবিস্কারের পর এটিকে দ্বিতীয় সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রত্নতত্ত্ব আবিষ্কার বলতে হবে। এতে প্রাচীন মিসরীয়দের জীবনযাত্রা কেমন ছিল তা জানা যাবে। একই সঙ্গে উন্মোচিত হবে তৃতীয় আমেনহোতেপের ছেলে অখুনাতুনকে নিয়ে ঐতিহাসিক মহারহস্য। কেন অখুনাতুন তার স্ত্রী নেফারতিতিকে নিয়ে ওই শহর ছেড়ে অমারনায় গিয়েছিলেন সে সম্পর্কে জানার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। সূত্র: ডেইলি মেইল।


© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com