ক্রীড়াঙ্গনেও লকডাউন

প্রকাশ: ১২ এপ্রিল ২১ । ২১:১১ | আপডেট: ১২ এপ্রিল ২১ । ২১:৩৪

অনলাইন ডেস্ক

ফাইল ছবি

দেশের সর্বাত্মক লকডাউনে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে খেলাধুলাও। ক্রিকেটের কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে দু'দিন আগে। ফুটবলও থাকছে না মাঠে। 

বাংলাদেশ গেমস শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অন্য খেলাগুলোর কার্যক্রম স্থগিত রেখেছে ফেডারেশনগুলো। সরকারি প্রজ্ঞাপনে এ ব্যাপারে কোনো নির্দেশনা না থাকলেও নিজ নিজ উদ্যোগে খেলাধুলা বন্ধ রাখছে সংশ্লিষ্ট ফেডারেশনগুলো।

২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে স্কুল-কলেজের সঙ্গে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল খেলাধুলা। এ ব্যাপারে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছিল। লকডাউন উঠে যাওয়ার প্রায় ছয় মাস পর সীমিত পরিসরে খেলা শুরু করার অনুমতি দেওয়া হয়। এবার অত লম্বা সময় খেলাধুলা বন্ধ রাখা নাও হতে পারে। লকডাউন উঠে গেলে খেলাধুলাও মাঠে ফিরতে পারে। যদিও গত বছরের অভিজ্ঞতা থেকে লকডাউন দেওয়ায় ক্রীড়াবিদরা কিছুটা দুশ্চিন্তায়। বিশেষ করে স্থগিত হওয়া ক্রিকেট লিগের খেলা অনিশ্চিত হয়ে যেতে পারে বলে মনে করছেন তারা।

গত বছর স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রথমে ট্রেনিং শুরু করেছিল ফেডারেশনগুলো। জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের জন্য একক অনুশীলনের ব্যবস্থা করেছিল বিসিবি। পরে বায়োসিকিউর বাবলে খেলা চালাতেও সক্ষম হয় তারা। নেপালের বিপক্ষে আন্তর্জাতিক প্রীতি ফুটবল ম্যাচ দিয়ে ফুটবল মাঠে ফেরে। বায়োসিকিউর বাবলে টুর্নামেন্ট এবং আন্তর্জাতিক সিরিজ আয়োজন করে বিসিবি। জানুয়ারিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হোম সিরিজ খেলেছে টাইগার বাহিনী। আয়ারল্যান্ড 'এ' দলের বিপক্ষে দ্বিপক্ষযি সিরিজ খেলেছে বিসিবি ইমার্জিং দল। 

বাংলাদেশ নারী ইমার্জিং দলের বিপক্ষে চারটি ওয়ানডে খেলে সোমবার দেশে ফিরে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকা নারী ইমার্জিং দল। পাকিস্তান অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বাংলাদেশ সফরের তারিখ দুবার বদল করা হয়েছে। লকডাউন শেষ হলে সিরিজটি খেলার ব্যাপারে নতুন করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। জাতীয় লিগের অবশিষ্ট খেলা সম্পন্ন করার পরিকল্পনা রেখেছে বিসিবি। মে মাসে আবার দেশে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজ খেলবেন তামিমরা। তাই এবার লকডাউন উঠে যাওয়ার পর পরই হয়তো খেলাধুলা শুরু হয়ে যাবে।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২১

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com