পদ্মায় ডুবে যাওয়া মাইক্রোবাস ২ ঘণ্টা পর উদ্ধার, নিখোঁজ চালক

প্রকাশ: ১১ মে ২১ । ২০:৫২

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি

সংগৃহীত ছবি

গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ঘাটে হঠাৎ কালবৈশাখীতে পন্টুনের তার ছিঁড়ে পদ্মা নদীতে পড়ে ডুবে যায় একটি মাইক্রোবাস। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ৫নং ফেরিঘাটে এ ঘটনা ঘটে। পরে উদ্ধারকারী দল দুই ঘণ্টা পর দুপুর দেড়টার দিকে মাইক্রোবাসটি ক্রেন দিয়ে ওপরে তুলতে সক্ষম হয়। তবে মাইক্রোবাসের ভেতর কাউকে পাওয়া যায়নি। নিখোঁজ চালককে উদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল।

সাদা রঙের নোয়াহ মাইক্রোবাসটি (ঢাকা মেট্রো-চ-২৬০৮) পাটুরিয়া ঘাটের উদ্দেশে নদী পার হতে পন্টুনে অপেক্ষায় ছিল। মাইক্রোটিতে অন্য কোনো যাত্রী ছিল কিনা তা নিশ্চিত করে বলতে পারেননি কেউ। রাজবাড়ী ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক আনোয়ার হোসেন বলেন, হঠাৎ দমকা বাতাস শুরু হওয়ায় সৃষ্ট ঢেউয়ের আঘাতে পন্টুনের তার ছিঁড়ে যায়। এ সময় মাইক্রোবাসটি প্রচণ্ড ঝাঁকুনিতে নদীতে পড়ে যায়। খবর পেয়ে প্রায় ৩০ মিনিটের মধ্যে রাজবাড়ী, গোয়ালন্দ ও পাটুরিয়া থেকে ফায়ার সার্ভিসের কর্মী এবং ডুবুরি দল উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে। দুপুর দেড়টার দিকে আমরা মাইক্রোটি ওপরে তুলতে সক্ষম হই। এ সময় মাইক্রোর পেছনের ডালা ভাঙা ছিল। ধারণা করছি, ভেতরে কেউ থাকলেও হয়তো ভাঙা অংশ দিয়ে বের হয়ে যেতে পারে।

প্রত্যক্ষদর্শী ঢাকার মিরপুর বাঙলা কলেজের ছাত্র জাহিদ হাসান বলেন, তিনি পাটুরিয়া ঘাট থেকে শাপলা-শালুক ফেরিতে দৌলতদিয়া ঘাটের উদ্দেশে আসছিলেন। ঘাটের কাছাকাছি এলে তাদের ফেরিটি ঝড়ের কবলে পড়ে। চালক দক্ষতার সঙ্গে ফেরিটি ৫নং ঘাটে ভেড়াতে সক্ষম হন। এ সময় আমাদের চোখের সামনেই পন্টুনের তার ছিঁড়ে গেলে এর ওপর থাকা মাইক্রোবাসটি প্রচণ্ড ঝাঁকুনিতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নদীতে পড়ে যায়। ডুবে যাওয়ার আগমূহূর্তে মাইক্রোবাসের চালক সাহায্যের জন্য হাত নাড়লেও তাকে সাহায্য করার মতো কোনো অবস্থা কারও ছিল না। মাইক্রোবাসটিতে আর কোনো যাত্রী ছিল কিনা তা আমরা নিশ্চিত নই।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com