চট্টগ্রামে মিতু হত্যা

কারাগারে নয়, বাইরের হাসপাতালে থাকতে চান বাবুল আক্তার

প্রকাশ: ২২ মে ২১ । ০০:০০ | আপডেট: ২২ মে ২১ । ০৩:৫৯ | প্রিন্ট সংস্করণ

আহমেদ কুতুব, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামের আলোচিত মাহমুদা খানম মিতু হত্যা মামলার প্রধান আসামি সাবেক এসপি বাবুল আক্তার কারাগারের চার দেয়ালের ভেতরে থাকতে চান না। বাইরের হাসপাতালে রাখার আবেদন জানিয়েছেন তিনি। নিজেকে 'গুরুতর অসুস্থ' বলে আদালতে দাবি করেছেন তিনি। বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হওয়ার তথ্যও দিয়ে কারাগারের বাইরে সরকারি কিংবা বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নেওয়ার আবেদন করেছেন।

তবে কারা চিকিৎসক জানিয়েছেন, চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে যাওয়ার পর থেকে বাবুল আক্তার সুস্থ ও স্বাভাবিক আছেন। হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার মতো তার শারীরিক কোনো সংকট তৈরি হয়নি।

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারা হাসপাতালের সহকারী সার্জন ডা. শামীম রেজা সমকালকে বলেন, বাবুল আক্তার কয়েকদিন আগে কারাগারে আসেন। তাকে কারাগারে পাঠানোর দিনই তার চিকিৎসা নিশ্চিত করার নির্দেশনা দেন আদালত। সেই অনুযায়ী তার চেকআপ করা হয়। তার সঙ্গে থাকা প্রেসক্রিপশন পর্যালোচনা করে ওষুধ দেওয়া হয়। তিনি কয়েকটি রোগে আক্রান্ত। সেই রোগের ওষুধ নিয়মিত সেবনও করছেন। তিনি সুস্থ আছেন। তাকে বাইরের হাসপাতাল তো নয়ই, কারা হাসপাতালে ভর্তি করানোর মতো কোনো শারীরিক পরিস্থিতিও তৈরি হয়নি। এক প্রশ্নের জবাবে ডা. শামীম রেজা বলেন, বাবুল আক্তার তাদের নিয়মিত চিকিৎসা নজরদারির মধ্যে রয়েছেন। আদালত যেভাবে নির্দেশনা দেবেন, সেভাবেই তারা কাজ করবেন।

বাবুল আক্তারের আইনজীবী আরিফুর রহমান বলেন, সাবেক এসপি কফ, ব্লাড প্রেশার, ডায়াবেটিস, শ্বাসকষ্ট ও অ্যাজমা রোগে ভুগছেন। তিনি দীর্ঘদিন ঢাকার দুটি হাসপাতালে কয়েকজন চিকিৎসাধীন ছিলেন। কিছুদিন আইসিইউতেও ছিলেন। কারা হাসপাতালে এসব রোগের সুচিকিৎসার ব্যবস্থা নেই। তাই কারাগারের বাইরে সরকারি কিংবা বেসরকারি যে কোনো হাসপাতালে তার চিকিৎসা করানোর নির্দেশনা চেয়ে আবেদন করেছেন। আদালত আবেদনটি গ্রহণ করে রোববার শুনানির জন্য অপেক্ষমাণ রেখেছেন।

স্ত্রী মিতু খুনের মামলায় পাঁচ দিনের রিমান্ড শেষে গত ১৭ মে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত বাবুল আক্তারকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এর আগে তিনি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে রাজি হলেও শেষ মুহূর্তে মতামত বদল করেন। তবে রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদে মিতুকে খুনের কথা স্বীকার করেছেন বলে দাবি করেছে তদন্ত সংস্থা পিবিআই। ১৭ মে কারাগারে পাঠানোর সময় আইনজীবীর আবেদনের ভিত্তিতে তার চিকিৎসা নিশ্চিত করার জন্য নির্দেশ দেন আদালত। সেই নির্দেশনা দেওয়ার চার দিনের মাথায় ২০ মে ফের তার উন্নত চিকিৎসা নিশ্চিত করতে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সরোয়ার জাহানের আদালতে আবেদন করেন তার আইনজীবী।

বাবুল আক্তার বর্তমানে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের সেলে বন্দি রয়েছেন। তিনি চট্টগ্রামে চাকরিরত থাকায় বহু দাগী আসামিকে গ্রেপ্তার করেছেন। সেই আসামিদের অনেকে কারাগারে থাকায় যে কোনো সময় তার ওপর হামলার আশঙ্কার জন্য তাকে নিরাপদ সেলে রাখা হয়েছে। কারাগারে ডিভিশনের কাগজপত্র না যাওয়ায় এখনও তিনি ডিভিশন পাননি বলে সংশ্নিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২১

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com