কিশোরীরাই শিক্ষক

২২ জুন ২১ । ০০:০০

চিলমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি

চিলমারীতে স্বপ্নচূড়া কিশোরী ক্লাবের উদ্যোগে শিশুদের পাঠদান-সমকাল

করোনাকালে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় লেখাপড়ার প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছে শিক্ষার্থীরা। কেউ কেউ বাল্যবিয়ের শিকার হচ্ছে, জড়িয়ে পড়ছে শিশুশ্রমে। আবার অনেকেই আসক্ত হচ্ছে মাদকে কিংবা মোবাইল ফোনে। এ অবস্থায় কয়েকজন কিশোরী এলাকার শিশু শ্রেণি থেকে পঞ্চম শ্রেণি ৬০ শিক্ষার্থীকে নিয়ে শুরু করেছে পাঠদান কার্যক্রম। তাদের এই উদ্যোগকে অভিভাবকরাও স্বাগত জানিয়েছেন।

উপজেলার থানাহাট ইউনিয়নের শেখপাড়া এলাকায় স্বপ্নচূড়া কিশোর-কিশোরী ক্লাবের উদ্যোগে ওয়ার্ল্ড কনসার্ন বাংলাদেশের সহযোগিতায় এই ব্যতিক্রমী পাঠদান কার্যক্রম পরিচালনা করছেন ক্লাবের রোমানা, মেঘনা, মৌ, রোকসানা, সুলতানা ও রুবেলরা। এরা প্রত্যেকেই স্কুলশিক্ষার্থী। সপ্তাহখানেক আগে চিলমারী উপজেলায় এই কার্যক্রম শুরু করেন তারা। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান না খোলা অবধি চলমান থাকবে এ কার্যক্রম।

প্রতিদিন বিকেল ৩টা থেকে ৫টা পর্যন্ত প্রত্যেক শ্রেণির শিক্ষার্থীদের আলাদাভাবে ভাগ করে নেওয়া হচ্ছে ক্লাস। পাঠদান কার্যক্রম মনিটরিং করছেন কারিগরি সহায়তায় থাকা রূপান্তর গুচ্ছ পর্যায় সংগঠনের সভানেত্রী লাইজু আক্তার।

তাদের এ কার্যক্রমকে অভিনন্দন জানিয়ে অভিভাবক আমেনা, আইরিন, মোনোয়ারা, মাহমুদা, রেপুনা বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় ছেলেমেয়েরা লেখাপড়া থেকে বিমুখ হয়ে যাচ্ছে। তাদের লেখাপড়ার গতি ফিরিয়ে আনতে এলাকার কয়েকজন কিশোরী যে উদ্যোগ নিয়েছে, তাতে ছেলেমেয়েরা একটু হলেও পড়ালেখার প্রতি আগ্রহী হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এ পাঠদান কার্যক্রম চালানো হচ্ছে।

সংশ্নিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, সীমিত আকারে যদি সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এই কার্যক্রম পরিচালনা করে, তবে অনেক ছাত্রছাত্রী আবারও পড়ালেখামুখী হবে।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২১

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com