সামাজিক মাধ্যমের অপব্যবহারে অপরাধ বাড়ছে: র‌্যাব মহাপরিচালক

প্রকাশ: ০৫ জুন ২১ । ২১:৫৭ | আপডেট: ০৫ জুলাই ২১ । ১৪:০৭

সমকাল প্রতিবেদক

শনিবার তেজগাঁওস্থ এফডিসিতে এক ছায়া সংসদ বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন র‌্যাব মহাপরিচালক

ডিবেট ফর ডেমক্রেসির উদ্যোগে শনিবার দুটি বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয় ঢাকায়। সকালে তেজগাঁওস্থ এফডিসিতে আয়োজিত বিতর্কের বিষয় ছিল 'কিশোর অপরাধ বৃদ্ধিতে সোশ্যাল মিডিয়ার অপব্যবহার'। ছায়া সংসদে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) এর মহাপরিচালক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন। সভাপতিত্ব করেন ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ।

প্রতিযোগিতায় ঢাকার শহীদ পুলিশ স্মৃতি কলেজকে পরাজিত করে নরসিংদীর আবদুল কাদির মোল্লা সিটি কলেজ এর বিতার্কিকরা চ্যাম্পিয়ন হয়। প্রতিযোগিতায় বিচারক ছিলেন ড. এস এম মোর্শেদ, সাংবাদিক লিটন হায়দার, আব্দুল্লাহ তুহিন, কাওসার সোহেলী, প্রাক্তন বিতার্কিক মেহেদী হাসান তামিম। প্রতিযোগিতা শেষে অংশগ্রহণকারী দলের মাঝে ট্রফি ও সনদপত্র প্রদান করা হয়।

র‌্যাবের মহাপরিচালক বলেন, অপরাধ নিয়ন্ত্রণে কোনো রাজনৈতিক চাপ নেই। টিকটকসহ কয়েকটি ডিজিটাল অ্যাপস অপব্যবহার হচ্ছে। অপরাধ প্রবণতা বৃদ্ধির কারণে ক্ষতিকারক অ্যাপসগুলো বন্ধ করার বিষয়ে একটি উচ্চ পর্যায়ের কমিটি পর্যালোচনা করছে। সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে অপরাধ সৃষ্টিকারিদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। অপরাধ করে কেউ পার পাবে না। তবে বর্তমান প্রযুক্তি নির্ভর সমাজে প্রযুক্তি বর্জন করা নয় বরং ইতিবাচকভাবে প্রযুক্তির ব্যবহার করে আমাদের জীবনমান উন্নয়ন করতে হবে।

শনিবার তেজগাঁওস্থ এফডিসিতে এক ছায়া সংসদ বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অর্থনীতি সমিতির সাধারণ সম্পাদক জামালউদ্দিন আহমেদ

সভাপতির বক্তব্যে হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ বলেন, সম্প্রতি আশঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে কিশোর অপরাধ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অপব্যবহারই এর কারণ। বিতর্কিত অ্যাপস টিকটকসহ বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে তারকা বানিয়ে আর্থিক প্রলোভন দেখিয়ে নিন্ম আয়ের পরিবারের মেয়েদের অনৈতিক কর্মকান্ডের ফাঁদে ফেলছে এসব অপরাধীরা।

বিকেলে পুঁজিবাজারের স্থিতিশীলতা রক্ষায় বিনিয়োগকারীদের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ- এ বিষয়ে আরও একটি বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সাধারণ সম্পাদক ড. জামালউদ্দিন আহমেদ। সভাপতিত্ব করেন আয়োজক সংগঠনের চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ। প্রস্তাবের পক্ষে সরকারি দল হিসেবে ছায়া সংসদে অংশ নেয় নর্দান ইউনিভার্সিটি এবং বিরোধী দল হিসেবে অংশ নেয় ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি। প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হয় সরকারী দল নর্দান ইউনিভার্সিটি। বিজয়ীদের ক্রেস্ট ও সনদ প্রদান করা হয়।

প্রধান অতিথি জামালউদ্দিন আহমেদ বলেন, পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীদের যথেষ্ট সচেতন ও সতর্ক হয়ে বিনিয়োগ করতে হবে। একই সাথে নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলোরও বড় দায়িত্ব রয়েছে। শেয়ারবাজার নিয়ে কোন অবৈধ কার্যক্রম হতে দেওয়া যাবে না। তাহলে আবারও বিনিয়োগকারীরা পথে বসবে।

প্রতিযোগিতায় বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাব বিজ্ঞানের সহযোগী অধ্যাপক আল আমীন, সাবেক বিতার্কিক রাজশাহী জোনের জয়েন্ট কমিশনার ট্যাপ মো. মেহেদী হাসান তামিম, সমকালের সহযোগী সম্পাদক সবুজ ইউনুস, একাত্তর টিভির সাংবাদিক কাবেরী মৈত্রেয়, উন্নয়ন যোগাযোগ বিশেষজ্ঞ ড.এস এম মোর্শেদ।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com