হত্যার হুমকির অভিযোগ মিথ্যা: সাবেক এমপি রানা

প্রকাশ: ০৭ জুন ২১ । ২১:২৩

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

পিস্তল ঠেকিয়ে একজনকে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন টাঙ্গাইল-৩ আসনের সাবেক সাংসদ আমানুর রহমান রানা।

সোমবার সকালে টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন করেছেন রানা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে আমানুর রহমান রানা বলেন, গত ১ জুন আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা ও ‘ষড়যন্ত্রমূলকভাবে’ সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়, আমি নাকি তপন রবিদাস নামের এক ব্যক্তিকে রিভলবার ঠেকিয়ে হত্যার হুমকি দিয়েছি। এমনকি তাকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে শহর ছেড়ে চলে যেতে বলেছি। 

তিনি বলেন, ‘এ তথ্য সম্পূর্ন মিথ্যা, ভিত্তিহীন এবং রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। তপন রবিদাস নামের কাউকে আমি চিনি না। এটি সম্পূর্ন ষড়যন্ত্রমূলক সাজানো নাটক, যার কুশীলবরা পর্দার আড়ালে রয়েছেন।’

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ঘাটাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মোতালেব হোসেন, আনেহলা ইউপি চেয়ারম্যান তালুকদার মো. শাহজাহান, দেওপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মাইন উদ্দিন তালুকদার, লোকেরপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান শরিফ হোসেন।

২০১২ সালের ১৮ নভেম্বর উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বিজয়ী হন রানা।

আমানুর রহমান খান আওয়ামী লীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলার আসামি। দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর ২০১৬ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর তিনি আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। ২২ মাস হাজতবাসের পর ২০১৯ সালের ৯ জুলাই উচ্চ আদালত থেকে জামিনে মুক্ত হন।

নির্বাচনে বিজয়ের দুই বছর পর ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে পুলিশি তদন্তে বেরিয়ে আসে, আমানুর রহমান খান আওয়ামী লীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যায় জড়িত।এরপর তিনি আত্মগোপন করেন। 

দুই বছর পলাতক থাকার পর ২০১৬ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর রানা আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। ২২ মাস হাজতবাসের পর ২০১৯ সালের ৯ জুলাই উচ্চ আদালত থেকে জামিনে মুক্ত হন। 

ফারুক হত্যা মামলায় আমানুরের ভাই সাবেক পৌর মেয়র সহিদুর রহমান খান এখনো কারাগারে। অপর দুই ভাই পলাতক।

সোমবার দুপুরে টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে রানাকে দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন ফারুক আহমেদের স্ত্রী ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক নাহার আহমেদ।

নাহার আহমেদ বলেন, ‘রানা একজনকে হত্যার হুমকি দিলেও প্রশাসন এখনও কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। খুনিরা আবার একত্র হচ্ছে। টাঙ্গাইলকে অশান্ত করে তুলছে।’

এ সময় তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন টাঙ্গাইল বাস কোচ মিনিবাস মালিক সমিতির মহাসচিব গোলাম কিবরিয়া বড়মনি, টাঙ্গাইল পৌরসভার কাউন্সিলর আমিনুর রহমান আমিন, আতিকুর রহমান মোর্শেদ।



© সমকাল ২০০৫ - ২০২১

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com