বরিশালে টার্মিনালে শ্রমিকদের সংঘর্ষ, ৫ ঘণ্টা বাস চলাচল বন্ধ

প্রকাশ: ১৫ জুলাই ২১ । ১৬:২০

বরিশাল ব্যুরো

লকডাউনে বন্ধ থাকার পর বৃহস্পতিবার বাস চলাচল শুরুর প্রথম দিনই নগরীর রূপাতলী বাস টার্মিনালে দুদল শ্রমিকের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে প্রায় ৫ ঘণ্টা বাস চলাচল বন্ধ ছিল। ফলে সকাল ৯টা থেকে বেলা আড়াইটা পর্যন্ত রূপতলী বাস টার্মিনাল দিয়ে পর্যটন কেন্দ্র কুয়াকাটা ও খুলনাসহ দক্ষিণা-পশ্চিমাঞ্চলের রুটগুলোতে বাস চলেনি।

রূপাতলী বাস টার্মিনালের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে সেখানে শ্রমিক সংগঠনের সক্রিয় দুটি কমিটির লোকজনের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয় বলে প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে।

বিবাদমান এক পক্ষ ঘোষণা দিয়েছে, অপরপক্ষের লোকজনকে পুলিশ গ্রেপ্তার না করলে শুক্রবার সকাল ৮টার পর রূপাতলী বাস টার্মিনাল এবং নথুল্লাবাদ কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে সব যাত্রীবাহী পরিবহন চলাচল অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হবে। 

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রগুলো জনিয়েছে, রূপাতলী বাস টার্মিনাল-কেন্দ্রিক শ্রমিক সংগঠন মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সদ্য গঠিত পরিমল দাস দাস ও আহমেদ শাহরিয়ার বাবুর নেতৃত্বাধীন গ্রুপ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার জন্য টার্মিনালে অবস্থান নেয়। তবে অপর অংশের সাধারণ সম্পাদক সুলতান মাহমুদ নেতৃত্বাধীন গ্রুপ তাদের বাধা দিলে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। এসময় দুইপক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় উভয়পক্ষের কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন। এর জের ধরে সকাল ৯টা থেকে রূপাতলী বাস টার্মিনাল থেকে সব রুটের  বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়।

একপক্ষের নেতা সুলতান মাহমুদ বলেন, পরিমল চন্দ্র দাস ও আহমেদ শাহরিয়ার বাবুর নেতৃত্বে গঠিত কমিটিকে সাধারণ শ্রমিকরা মেনে নেননি। তারা জোরপূর্বক টার্মিনালের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছেন। 

তিনি অভিযোগ করেন, বৃহস্পতিবার টার্মিনালে অবস্থান নিয়ে তার (সুলতান) শ্রমিকদের কাজে যোগ দিতে বাধা দেয় পরিমল-বাবুর লোকজন। এতে সদ্য গঠিত ওই কমিটির বাবুল, হান্নান মৃধা ও শওকত খানসহ কয়েকজন মিলে হামলা করে ৫ শ্রমিককে আহত করেছে। 

তবে মহানগর শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক ও মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সদ্য গঠিত কমিটির সভাপতি পরিমল চন্দ্র দাস বলেন, দীর্ঘদিন পর বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বাস চলাচল শুরু হয়। শ্রমিকরা যাত্রী তোলার কাজে নিয়োজিত হলে সকালে আকস্মিক সুলতান মাহমুদের লোকজন হামলা করে বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পদাক নাসির মৃধাসহ ৫ জনকে আহত করেছে।

পরিমল চন্দ্র দাস বলেন, তারা হামলাকারীদের বিরুদ্ধে মামলা করবেন। আসামিদের গ্রেপ্তার না হলে শুক্রবার সকাল থেকে আবার বাস চলাচল বন্ধ করে দেবেন। 

বরিশাল-পটুয়াখালী বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাওছার হোসেন শিপন বেলা ৩টায় জানান, হামলার প্রতিবাদে সকাল ৯টা থেকে বেলা আড়াইটা পর্যন্ত বাস চলাচল বন্ধ ছিল। পরে তারা নথুল্লাবাদ বাস টার্মিনালের মালিক ও শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে সভা করে মালিক সমিতির সহ সভাপতি নাসির মৃধাসহ অন্যদের ওপর হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে প্রশাসনকে শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত আল্টিমেটাম দিয়েছেন। এ সময়ের মধ্যে গ্রেপ্তার করা না হলে শুক্রবার সকাল ৮টা থেকে দুই টার্মিনালের সব ধরনের বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হবে।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com