দর হারিয়ে কেনাবেচা হচ্ছে ব্যাংক-বীমার শেয়ার

প্রকাশ: ১৮ আগস্ট ২১ । ১২:৪৮ | আপডেট: ১৮ আগস্ট ২১ । ১৬:০৬

সমকাল প্রতিবেদক

গতকালের বিপরীত ধারায় আজ দেশের শেয়ারবাজারে লেনদেন চলছে। সিংহভাগ ব্যাংক, বীমা খাতের শেয়ার এবং মিউচুয়াল ফান্ডের দর বেড়ে শেয়ার কেনাবেচা শেষ হলেও আজ বিপরীত অবস্থা। এ দুই খাতের শেয়ারের পাশাপাশি মিউচুয়াল ফান্ডও দর হারিয়ে কেনাবেচা হচ্ছে।

তবে গতকালের মত আজও আর্থিক প্রতিষ্ঠান খাতের শেয়ারকে দর হারিয়ে কেনাবেচা হতে দেখা যাচ্ছে। যথারীতি বস্ত্র খাতের সিংহভাগ শেয়ার দর বেড়ে কেনাবেচা হচ্ছে।

লেনদেনের এই চিত্র আজ সকাল ১০টায় দিনের স্বাভাবিক লেনদেন শুরুর দুই ঘণ্টা পর দুপুর ১২টার।

এ সময় প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) প্রধান মূল্য সূচক ৬.৮৭ পয়েন্ট বেড়ে ৬৭৯৪.০৩ পয়েন্টে অবস্থান করছিল। 

তবে লেনদেন শুরুর পর গতকালের ধারাবাহিকতায় আজও সূচকে ঊর্ধ্বমুখী ধারা ছিল। বেলা ১০টা ৩৮ মিনিটে সূচকটি গতকালের তুলনায় প্রায় ৩৫ পয়েন্ট বেড়ে ৬৮২২.২১ পয়েন্টে উঠে। ২০১৩ সালের জানুয়ারিতে চালুর পর এই প্রথম সূচকটি ৬৮০০ পয়েন্ট ছাড়িয়েছিল এবং এটাই এ সূচকের এখন পর্যন্ত রেকর্ড অবস্থান।

তবে পৌনে ১১টা থেকে ব্যাংক এবং বীমা খাতের শেয়ার দর হারানো শুরু হলে সূচকটি ১১টা ২২ মিনিটে দিনের সর্বোচ্চ অবস্থান থেকে ৬৬ পয়েন্ট হারিয়ে ৬৭৬৬.২ পয়েন্টে নামে।

এর পর বেক্সিমকো লিমিটেডের সঙ্গে বেক্সিমকো ফার্মার শেয়ারদর বৃদ্ধি সূচকটিকে নিম্নমুখী ধারা থেকে টেনে তোলে। দুপুর ১২টায়ও সে ধারা চলছিল।

এ সময় ডিএসইতে লেনদেনে আসা ৩৭৪ শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে ১৭৭টি দর বেড়ে কেনাবেচা হতে দেখা যায়। দর হারিয়ে কেনাবেচা হচ্ছিল ১৫২টি এবং দর অপরিবর্তিত অবস্থায় ছিল ৪৫টি।

সূচকের ওঠানামা পর্যালোচনায় দেখা গেছে, দুপুর ১২টায় অধিকাংশ ব্যাংক খাতের শেয়ার দর হারিয়ে কেনাবেচা হওয়ায় সূচকে এ খাত ১৪ পয়েন্ট নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছিল। একইভাবে বীমা খাতের নেতিবাচক প্রভাব ছিল ৪ পয়েন্ট। 

গতকাল ডিএসইএক্স সূচক ৩৮ পয়েন্ট বাড়লেও ব্যাংক এবং বীমা খাতের শেয়ার সূচকে যোগ করেছিল প্রায় ৭০ পয়েন্ট।

লেনদেনের প্রথম দুই ঘণ্টায় ডিএসইতে প্রায় ১০০০ কোটি টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে।

দুপুর ১২টায় দিনের সার্কিট ব্রেকারের সর্বোচ্চ দরে (প্রায় ১০ শতাংশ বেশিতে) কেনাবেচা হচ্ছিল মেট্রো স্পিনিং এবং সাউথবাংলা ব্যাংকের শেয়ার। ৯ শতাংশ দরবৃদ্ধি নিয়ে দরবৃদ্ধির শীর্ষে ছিল ওরিয়ন ফার্মা।

বিপরীতে ৪ শতাংশের ওপর দর হারিয়ে শ্যামপুর সুগার, ডেফোডিল কম্পিউটার্স, এমআই সিমেন্ট এবং ফারইস্ট ফাইন্যান্স ছিল দরপতনের শীর্ষে।

এ সময় ব্যাংক খাতের ৬ শেয়ারের দরবৃদ্ধির বিপরীতে ২৬টি দর হারিয়ে কেনাবেচা হচ্ছিল। এ খাতের সার্বিক দরপতনের হার ছিল ০.৮৫ শতাংশ।

৮ বীমার শেয়ার দর বেড়ে কেনাবেচা হচ্ছিল, দর হারিয়ে কেনাবেচা হচ্ছিল ৩৮ শেয়ার। সার্বিক দরপতনের হার ছিল ১.০৮ শতাংশ।

আর্থিক প্রতিষ্ঠান খাতের ৪ শেয়ার দর বেড়ে কেনাবেচার বিপরীতে ১৬টিকে দর হারিয়ে কেনাবেচা হতে দেখা গেছে।

তবে বস্ত্র খাতের ৪৮ শেয়ার দর বেড়ে এবং ৮টি দর হারিয়ে কেনাবেচা হচ্ছিল।

প্রকৌশল খাতের ২৫ শেয়ার যেখানে দর বেড়ে কেনাবেচা হচ্ছিল, সেখাতে দর হারিয়ে কেনাবেচা হতে দেখা গেছে ১৪ শেয়ারকে।

পৌনে ৬৪ কোটি টাকার লেনদেন নিয়ে একক কোম্পানি হিসেবে লেনদেনের শীর্ষে ছিল বেক্সিমকো লিমিটেড। এর পরের অবস্থানে থাকা আইএফআইসির ৩৪ কোটি টাকার, ওরিয়ন ফার্মার প্রায় ২৯ কোটি টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়।


© সমকাল ২০০৫ - ২০২১

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com