কাবুল হামলায় আইএসের সঙ্গে তালেবান যোগসূত্র পাননি বাইডেন

প্রকাশ: ২৭ আগস্ট ২১ । ১১:০৯ | আপডেট: ২৭ আগস্ট ২১ । ১১:০৯

অনলাইন ডেস্ক

কাবুলে আত্মঘাতী বিস্ফোরণের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯০

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের হামিদ কারজাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের সামনে জোড়া আত্মঘাতী হামলার দায় স্বীকার করেছে নিষিদ্ধঘোষিত আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের খোরাসান প্রভিন্স (আইএস-কে) শাখা। 

যুক্তরাষ্ট্রের শুরু থেকেই বলে আসছে, এ হামলা আইএস করেছে। এক্ষেত্রে তালেবান ও আইএসের মধ্যে কোনো যোগসূত্র দেখছেন না মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। খবর বার্তা সংস্থা এএফপির।

হামলার পর বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউস থেকে কথা বলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেন, 'কাবুলে কাজ করা কমান্ডারদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে আমাকে কিছু নথিপত্র দেওয়া হয়েছে। এসব থেকে এটা কোনোভাবেই নিশ্চিত হওয়া যায় না যে, এই হামলার পেছনে আইএস ও তালেবানের মধ্যে কোনো ধরনের যোগসূত্র রয়েছে।' 

বাইডেন আইএসের সঙ্গে তালেবানের সম্পর্ক না পেলেও হাক্কানি নেটওয়ার্কের সঙ্গে আইএসের সম্পর্ক রয়েছে বলে মনে করা হয়। এই হাক্কানি নেটওয়ার্কের সঙ্গে আবার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক তালেবানের। হাক্কানি নেটওয়ার্কের নেতা সিরাজুদ্দিন হাক্কানি তালেবানেরও নেতা।

বিবিসি বলছে, ২০১৫ সালে আইএস-কে প্রতিষ্ঠিত হয়। ওই সময় সিরিয়া ও ইরাকে শক্তিশালী ছিল আইএস। আফগানিস্তান ও পাকিস্তান থেকে সদস্য সংগ্রহ করে থাকে জঙ্গি সংগঠনটি। আইএস-কে আফগানিস্তান ও পাকিস্তানে সক্রিয় হলেও আফগানিস্তানে সবচেয়ে নৃশংস ও কট্টরপন্থী সন্ত্রাসী গোষ্ঠী হিসেবে পরিচিত তারা। আইএসের এই শাখাটি মূলত আফগানিস্তানের নানগাহার প্রদেশকে তাদের ঘাঁটি হিসেবে মনে করে।

বৃহস্পতিবার আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের হামিদ কারজাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের বাইরে দুটি আত্মঘাতী বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। ভয়াবহ এই বিস্ফোরণে ১৩ মার্কিন সেনাসহ অন্তত ৯০ জন নিহত এবং ১৫০ জনের বেশি আহত হয়েছেন।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭১৪০৮০৩৭৮ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com