টর্চার সেলে দম্পতিকে নির্যাতন: আরেক আসামি গ্রেপ্তার

প্রকাশ: ০৯ সেপ্টেম্বর ২১ । ১৯:২৭ | আপডেট: ০৯ সেপ্টেম্বর ২১ । ১৯:৪৪

নওগাঁ প্রতিনিধি

র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার পলাতক আসামি তরিকুল ইসলাম। ছবি: সমকাল

নওগাঁর মহাদেবপুরে চাঁদার দাবিতে যুবদল নেতার টর্চার সেলে দম্পতিকে নির্যাতনের ঘটনায় দায়ের করা মামলার পলাতক আসামি তরিকুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার দক্ষিণ হোসেনপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি পত্নীতলা উপজেলার ছোট-চাঁদপুর গ্রামের বাসিন্দা। তবে এ মামলা মুল হোতা রুহুল আমিন এখনও পলাতক।

উপজেলার দক্ষিণ হোসেনপুর গ্রামের বোয়ালমারী মোড়ের কারিমা চালকল মালিক ও যুবদল নেতা মো. রুহুল আমীন পত্নীতলা উপজেলার উত্তর মাহমুদপুর গ্রামের নার্সারি ব্যাবসায়ী মিঠুন চন্দ্র চৌধুরী ও তার স্ত্রী শ্যামলী রাণী চৌধুরীর কাছ থেকে মাঝে মধ্যেই চারা গাছ কেনেন। ১৫ আগস্ট সকালে নার্সারিতে গিয়ে রুহুল আমীন ব্যবসায়ী মিঠুন চন্দ্র চৌধুরীকে একটি প্রাইভেট কারে করে তুলে এনে তার চাতালের টর্চার সেলে আটকে রাখেন। পরে মুক্তিপণ হিসাবে মিঠুনের স্ত্রীর কাছে ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন। স্বামীকে ছাড়াতে রাণী চৌধুরী ১০ হাজার টাকা বিকাশের মাধ্যমে রুহুলকে পাঠান। তবে টাকা পাঠাতে দেরী হওয়ায় রুহুল চাঁদার পরিমান বাড়িয়ে আরো ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন। 

শ্যামলী রানী এই টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে ক্ষিপ্ত হয়ে রুহুল আমীন, তার দুই স্ত্রী রুবাইয়া ইসলাম বৃষ্টি ও মুক্তা পারভীন এবং তরিকুল ইসলামসহ কয়েকজন মিঠুন চৌধুরীর পায়ের রগ কেটে ও আঙ্গুলে নখ তুলে ফেলাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে হাতুড়ী দিয়ে আঘাত করে। ঘটনার দুইদিন পর শ্যামলী স্বামীকে ছাড়াতে রহুল আমীনের বয়লারে গেলে তাকেও বেধরক মারধর ও চুল কেটে দেয় তারা। নির্যাতনের পর তার কাছে থাকা টাকা হাতিয়ে নিয়ে ফাকা ষ্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেয়। 

এ খবর পেয়ে মহাদেবপুর থানার এসআই সাইফুল ইসলাম যুবদল নেতার টর্চার সেল থেকে গুরুতর আহত অবস্থায় মিঠুন চৌধুরী ও তার স্ত্রী শ্যামলীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। 

এ ঘটনায় গত ২২ আগস্ট রাতে নির্যাতনের শিকার শ্যামলী রানী বাদী হয়ে রুহুল আমীন, তার দুই স্ত্রী রুবাইয়া ও মুক্তা পারভীন এবং তরিকুল ইসলামসহ কয়েক জনের বিরুদ্ধে মহাদেবপুর থানায় মামলা করেন। ওই রাতেই পুলিশ রুহুল আমিনের দুই স্ত্রী রুবাইয়া আক্তার ও মুক্তা পারভীনকে গ্রেপ্তার করে। এ সময় রুহুল আমিন ও তরিকুল ইসলাম আত্মোগোপন করে।  এ গটনায় বৃহস্পতিবার তরিকুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। এই মামলা মুল হোতা রুহুল আমিন এখনও পলাতক রয়েছে।

মহাপদেবপুর থানার ওসি আজম উদ্দিন মাহমুদ বলেন, এ মামলায় আগে আরও দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রধান আসামী রুহুল আমিনকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।


© সমকাল ২০০৫ - ২০২১

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com