এক সপ্তাহের মধ্যে ভাঙা সড়ক সংস্কারের আল্টিমেটাম সুজনের

প্রকাশ: ২৫ সেপ্টেম্বর ২১ । ১৭:৪৩ | আপডেট: ২৫ সেপ্টেম্বর ২১ । ১৭:৪৩

চট্টগ্রাম ব্যুরো

ভাঙা সড়ক সংস্কারের দাবিকে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন সুজন- সমকাল

উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডকে প্রশ্নবিদ্ধ করতেই জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক প্রশাসক এবং চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন। শনিবার চট্টগ্রামের প্রধান সড়ক দেওয়ানহাট থেকে পতেঙ্গা পর্যন্ত্ম খানাখন্দে ভরা সড়কের সংস্কারের দাবিতে আয়োজিত মানববন্ধনে এ অভিযোগ করেন তিনি। সড়কটি সংস্কারে এক সপ্তাহের সময় বেঁধে দেন। অন্য কঠোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলেও হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।

খোরশেদ আলম সুজন বলেন, ‌‘বৃষ্টি হলে কাদাপানির ভোগান্তি আর বৃষ্টি কমলে শুরু হয় ধুলিঝড়। দেখে মনে হবে যেন একটা যুদ্ধবিধ্বস্ত এলাকার বাসিন্দা এরা। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে অসুস্থ হয়ে পড়ছে শিশু, বৃদ্ধসহ সর্বস্তরের মানুষ। এরকম একটি অমানবিক পরিস্থিতিতে বসবাস করছে এই এলাকার জনসাধারণ। যাদের কোনো স্বাভাবিক জীবনধারা নেই বললেই চলে। এই রাস্তা দিয়ে চলাচলকারী লাখো পথচারী এবং যানবাহনের যাত্রীদের সীমাহীন ভোগান্তি যেন শেষ হওয়ার নয়। হাসপাতাল নেওয়ার পথে তিনজন রোগী রাস্তায় মারা গেছেন। কবে যে এ দুর্ভোগ থেকে তারা মুক্তি পাবে তা কেউ জানে না।’

তিনি বলেন, ‘দেওয়ানহাট থেকে পতেঙ্গা পর্যন্ত সড়কটি চট্টগ্রামের প্রধান সড়ক। এ সড়কটি নগরীর ভিআইপি সড়ক হিসেবেও পরিচিত। প্রতিদিন হাজার হাজার যানবাহন এবং লাখো মানুষের যাতায়াত এই সড়ক দিয়ে। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখ ও পরিতাপের বিষয় হচ্ছে এই এলাকা দিয়ে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ কাজ করতে গিয়ে রাস্তাটি সংকুচিত করে ফেলেছে নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান। এ ছাড়া নির্মাণ কাজ করতে গিয়ে সড়কে শতশত ছোট বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। রাস্তার দুই পাশে পানি জমে কর্দমাক্ত হয়ে রাস্তাটি পুরোপুরি চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। জীবন হাতে নিয়ে এই সড়ক দিয়ে যাতায়াত করছে এখানকার বাসিন্দারা।’

তিনি আরও বলেন, ‘গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কের সঙ্গে রয়েছে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, চট্টগ্রাম বন্দর, দুটি ইপিজেড, কলকারখানা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, বেসরকারি কন্টেইনার ডিপো, ব্যাংক, নৌ ও বিমান বাহিনীর সব গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা। শুধুমাত্র দুটি ইপিজেডে কাজ করেন কয়েকলাখ শ্রমিক। প্রতিদিন স্কুল কলেজে যাতায়াত করে কয়েক হাজার শিক্ষার্থী। রয়েছে একটি কোভিড টিকা কেন্দ্র। হাজার হাজার মানুষের চলাফেরা রয়েছে শুধু এই এলাকায়। মানুষ যে ভারী ভারী যানবাহনের চাপায় পড়বে না তার নিশ্চয়তা কে দেবে?’

রাহে ভাণ্ডার তরুণ আশেকান পরিষদ (রাতআপ) বন্দর শাখার সভাপতি তানভীর ইসলামের সভাপতিত্বে ও মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন নয়নের সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন কাউন্সিলর শাহনুর বেগম, নাগরিক উদ্যোগের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হাজী মো. ইলিয়াছ, সদস্য সচিব হাজী মো. হোসেনসহ বিভিন্ন স্থানীয় বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com