ঋণ অভ্যাস বদলের ৫ পরামর্শ

০৩ অক্টোবর ২১ । ০০:০০

শাহনেওয়াজ টিটু

সময় এক পাগলা ঘোড়া! এই ঘোড়াটাকে আরও খেপিয়ে দিয়েছে যেন করোনা। এই করোনা এসে মানুষকে কত কী দেখাচ্ছে! আমরাও মুখোমুখি হচ্ছি নানা প্রতিবন্ধকতার। ঋণ, এই সময়ের আলোচিত একটি নাম বলতে পারেন। অনেকের কাছে ঋণ শব্দটি নতুন করে পরিচিতি পাচ্ছে। মানে অনেকেই এখন পরিস্থিতির কারণে ঋণের মুখোমুখি হচ্ছেন। তবে এ ঋণ আমাদের জীবনে হুট করে আসে না। দৈনন্দিন জীবনে এমন কিছু খরচের ধরন রয়েছে, যেগুলো আমাদের ঋণের পরিমাণ আস্তে আস্তে বাড়িয়ে দেয়। সেসব দিক চিনে নিতে পারলে ভবিষ্যৎ চাপ থেকে বাঁচাতে পারি এবং থাকতে পারি মানসিক চাপমুক্ত। আপনি ঋণের পরিমাণ বাড়াতে না চাইলে এবং চলমান ঋণ পরিশোধ করতে চাইলে কিছু অভ্যাসের মুখোমুখি হতে পারেন-

আগে বসুন আয়-ব্যয়ের হিসাব নিয়ে

মাসে ৩০ হাজার টাকা আয় করে ৪০ হাজার টাকা ব্যয় করা আপাতদৃষ্টিতে অসম্ভব হলেও, বাস্তবে তা মোটেও কঠিন নয়। আপনি আপনার মনের অজান্তেই এ কাজটি করে ফেলতে পারেন। নিজের সঞ্চয় ভাঙা, অন্যের কাছ থেকে ধার করা, ক্রেডিট কার্ডের ব্যবহারসহ আরও অনেক মাধ্যমে আয়ের চেয়ে বেশি ব্যয় করতে পারেন। এভাবে হয়তো আপনি কয়েক মাস সমস্যা ছাড়াই কাটিয়ে দিতে পারবেন। তবে নিজের বানানো এ গর্তে পড়বেনই। একদিন ঠিকই আপনার জমানো টাকা শেষ হয়ে যাবে, ক্রেডিট কার্ডের লিমিট শেষ হবে এবং ধার করার মতো মানুষও পাবেন না। তাই আয়ের মধ্যেই ব্যয়কে সীমাবদ্ধ রাখুন।

টাকা না থাকলেও করতে হবে খরচ!

এটা আপনার ঋণের পরিমাণ বাড়াতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার অথবা অন্যের কাছ থেকে ধার করে আপনি টাকা না থাকা সত্ত্বেও খরচ করতে পারেন। যখন আপনি এ পদ্ধতিতে বিল দিচ্ছেন বা দৈনন্দিন কেনাকাটা করছেন বা ব্যাংক থেকে অভার ড্রাফট করছেন বা অগ্রিম টাকা নিচ্ছেন। আপনার ঋণের পরিমাণ সে সঙ্গে বেড়ে চলছে। সবচেয়ে খারাপ দিক হলো, প্রতি মাসে এ ঋণ না পরিশোধ করলে এর পরিমাণ বাড়তে থাকে। তাই নিজের আয়ের ওপর নির্ভরশীল হলে এ সমস্যা থেকে দূরে থাকা সম্ভব।

ক্রেডিট কার্ড দেনায় ডোবায়

দৈনন্দিন কেনাকাটায় আপনার ক্যাশ টাকা ব্যবহার করা উচিত। ক্রেডিট কার্ডের সবচেয়ে আকর্ষণীয় দিক হলো, আপনি এখনকার কেনাকাটার জন্য পরে পে করতে পারবেন। তার মানে আপনি টাকা পরিশোধ না করেই সেসব পণ্য বা সেবা ব্যবহার করছেন। এতে করে আপনার ঋণ বেড়ে যাচ্ছে।

পকেটে টাকা তবু...

ক্যাশ টাকার পরিবর্তে ক্রেডিট কার্ডের ব্যবহার আপনার ঋণকে আরও বাড়িয়ে দেয়। আপনি হয়তো ক্রয়কৃত পণ্য বা সেবার জন্য ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে ক্যাশ টাকা হাতে রাখতে পারেন। কিন্তু এর খারাপ দিকও আছে। আপনি যদি আজই এ টাকা পরিশোধ করতে না চান, তবে আগামীকালও সেই টাকা আপনি পরিশোধ করতে চাইবেন না। এভাবে ঋণ বাড়তে থাকবে।

ঋণের টাকায় ঋণ পরিশোধ

যদি ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে অন্যান্য কার্ডের বিল, ধার, কেনাকাটার বিল ইত্যাদি পরিশোধ করেন, তবে ভুলে যাবেন না যে, আসলে আপনি কিছুই পরিশোধ করছেন না। আপনি আপনার ঋণ এক স্থান থেকে অন্য স্থানে শিফট করছেন এবং সে সঙ্গে এর পরিমাণও বাড়িয়ে নিচ্ছেন। কারণ প্রতিটি ট্রানজেকশনের সঙ্গে ফি দেওয়া লাগে, সঙ্গে অফিস ফিসহ অন্যান্য ফিও দিতে হয়। এতে করে আপনার খরচ বাড়ছে। ক্রেডিট কার্ডের ব্যবহার আপনার কাছে সুবিধাজনক মনে হলেও আপনার ঋণ কমানোর ক্ষেত্রে এটি কোনো কাজেই লাগে না, বরং আপনার অজান্তে ঋণ বাড়িয়ে দেয়। তাই ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারে সাবধান হোন। হ

© সমকাল ২০০৫ - ২০২১

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com