বিলিয়ার আলোচনা সভা

'সংবিধান মৌলিক অধিকার রক্ষার নিশ্চয়তা দেয়'

প্রকাশ: ২৬ নভেম্বর ২১ । ২৩:১৩ | আপডেট: ২৬ নভেম্বর ২১ । ২৩:১৩

সমকাল প্রতিবেদক

প্রতীকী ছবি

'সংবিধান একটি দেশের সর্বোচ্চ আইন। এর আলোকেই শাসনকার্য পরিচালিত হয়। বাংলাদেশের সংবিধান নানা কাটা-ছেঁড়ার মধ্য দিয়ে এগিয়েছে। এর মূলনীতিতে পরিবর্তন আনা হয়েছে। কিন্তু সংবিধান জনগণের মৌলিক অধিকার রক্ষার গ্যারান্টি দেয়। বাংলাদেশ ও ভারতের সংবিধান অনেক অভিজ্ঞতা ও ত্যাগের মধ্য দিয়ে অর্জিত হয়েছে। তাই দুই দেশের সংবিধানই মানুষের মৌলিক অধিকার ও বাকস্বাধীনতার নিশ্চয়তা দিয়েছে।'

ভারতের সংবিধান দিবস উপলক্ষে আয়োজিত 'জাতি গঠন এবং সংবিধান: বাংলাদেশ এবং ভারতের অভিজ্ঞতার তুলনামূলক মূল্যায়ন' শীর্ষক আলোচনা সভায় শুক্রবার বক্তারা এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ল অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্স (বিলিয়া) নিজস্ব মিলনায়তনে এ সভা করে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, দীর্ঘ স্বাধীনতা সংগ্রামের অভিজ্ঞতার আলোকে বাংলাদেশের সংবিধান প্রণীত হয়েছে। জাতির পিতার দর্শন ও জনগণের আকাঙ্ক্ষা সংবিধানে প্রতিফলিত হয়েছে। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর বারবার সংবিধানকে ক্ষতিগ্রস্ত করা হয়েছে। মূলনীতি পালটানো হয়েছে। ফলে বর্তমান সরকারের ধারাবাহিক উন্নয়নের পরও খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলতে হচ্ছে।

বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী বলেন, সংবিধানকে সহজবোধ্য করে জনগণের সামনে তুলে ধরতে হবে। যাতে সাধারণ মানুষ সংবিধান বুঝতে পারে। নিজেদের অধিকার সম্পর্কে সচেতন হতে পারে। তিনি বলেন, বাংলাদেশ ও ভারত দুটি দেশই দীর্ঘদিন পরাধীন ছিল। জনগণ মৌলিক অধিকার বঞ্চিত ছিল। তাই সংবিধান প্রণয়নের সময় দেশ দুটির সংবিধানে মৌলিক অধিকার সুরক্ষার ওপর বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

সভাপতির বক্তৃতায় বাংলাদেশের সংবিধানের অন্যতম প্রণেতা ও জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ব্যারিস্টার আমীর-উল ইসলাম বলেন, সংবিধানের সাম্যতা, মানুষের সম্মান রক্ষার কথা বলা হয়েছে। কিন্তু এখন প্রতিদিন পত্রিকা খুললেই শুধু অমানুষ দেখা যায়। তাই শিশুদের ছোট থেকে মানুষ হওয়ার শিক্ষা দিতে হবে। পাঠ্যপুস্তকে পরিবর্তন আনতে হবে।

আলোচনা সভায় মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন সরকার আলী আক্কাস। আলোচনায় আরও অংশ নেন ভারতের আইনজীবী অর্ঘ সেনগুপ্ত, বাংলাদেশের ব্যারিস্টার তানিয়া আমীর প্রমুখ।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com