‘যদি ১০টা মার্ডার করা লাগে করবেন, বাকিটা আমি দেখবো’

প্রকাশ: ৩১ ডিসেম্বর ২১ । ১৮:২৪ | আপডেট: ৩১ ডিসেম্বর ২১ । ১৯:০৬

কুমিল্লা প্রতিনিধি

‘আমি এই জনসভায় বলে যাচ্ছি, যখন নমিনেশন নিয়া আসছি তখন এটা আমার নির্দেশ। মাইর খাওয়া যাবে না। যদি ১০টা মার্ডারও করা লাগে করবেন। আমি বাকিটা দেখবো-ইনশাআল্লাহ।‘ নির্বাচনী পথসভায় এসব কথা বলেন কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার জোয়াগ ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার মো. আউয়াল খাঁনের ছেলে মিজানুর রহমান। তার এই বক্তব্যের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

এক মিনিট দুই সেকেন্ডের ওই ভিডিওটিতে দেখা যায় মিজানুর রহমান বলেন, ‘আমার একটা লোকের যদি এক ফোটা রক্ত ঝরে, আপনারা ১০ ফোটা রক্ত নিয়ে আসবেন, বাকিটা আমি দেখবো। চুল পরিমাণও ছাড় দেব না। মিজান কি জিনিস এখনও জোয়াগ ইউনিয়নের অনেক লোক জানে না।’ 

পঞ্চম ধাপের ইউপি নির্বাচনে আগামী ৫ জানুয়ারি চান্দিনার ১২টি ইউনিয়নে নির্বাচন হবে। সম্প্রতি চেয়ারম্যানের ছেলের এমন বক্তব্যে এলাকায় বেশ সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার মো. আউয়াল খাঁন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি ও উপজেলা আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক। 

এ বিষয়ে মিজানুর রহমান বলেন, ‘এসব ভিডিও এডিট করা এবং ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে অপপ্রচারের জন্য করা হয়েছে।’ 

এ ব্যাপারে মিজানুর রহমানের বাবা ও চেয়ারম্যান প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার মো. আউয়াল খাঁন বলেন, ‘এগুলো আমাদের প্রচারণার বাধা মাত্র। আমরা এগুলোর প্রতিবাদ জানাই।’ 

এ বিষয়ে চান্দিনা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুনতাকিম আশরাফ টিটু বলেন, ‘এই ভিডিওটি দেখেছি। ঘটনাটি দুঃখজনক। এর চেয়ে বেশি কিছু বলতে চাই না।’

 জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা দুলাল তালুকদার বলেন, ‘বিষয়টি আমাদের নজরে এসেছে। আমরা বিষয়টি তদন্ত করছি।’ 

শুক্রবার বিকেলে চান্দিনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আরিফুর রহমান বলেন, ‘আমি ভিডিওর বিষয়ে জেনেছি। চান্দিনা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিষয়টির তদন্ত করে ব্যবস্থা নিচ্ছেন বলে জেনেছি।’

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com