গোবিন্দগঞ্জে নির্বাচনী সহিংসতার মামলায় আসামি ৫০০

প্রকাশ: ০৪ জানুয়ারি ২২ । ২০:৩৪ | আপডেট: ০৪ জানুয়ারি ২২ । ২০:৩৪

গোবিন্দগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি

চতুর্থ ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে নির্বাচনী সহিংসতায় অজ্ঞাতনামা ৫০০ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। 

উপজেলা উপসহকারী প্রকৌশলী সুলতান মাহমুদ বাদী হয়ে গোবিন্দগঞ্জ থানায় মামলাটি দায়ের করেছেন। 

গোবিন্দগঞ্জ থানার ওসি মো. ইজার উদ্দিন সমকালকে জানান,  নির্বাচনে সহিংসতার ঘটনায় মামলা দায়ের হয়েছে। এখনো কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি। তবে আসামি গ্রেপ্তার পুলিশের জোর তৎপরতা অব্যাহত আছে। 

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত ২৬ ডিসেম্বর চতুর্থ ধাপে অনুষ্ঠিত গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কোচাশহর ইউনিয়নের নির্বাচনী কার্যক্রম শেষে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ভোট গণনার ফলাফল ঘোষণা করে রেজাল্ট শিট, সরকারি মালামাল নিয়ে গোবিন্দগঞ্জ ফিরছিলেন প্রিজাইডিং অফিসার উপজেলা উপসহকারী প্রকৌশলী সুলতান মাহমুদ। তার সঙ্গে ছিলেন অন্যান্য নির্বাচনী অফিসার, ফোর্স এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী (ভূমি) তরিকুল ইসলাম। 

এসময় কোচাশহর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের কোচাশহর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে  অজ্ঞাতনামা প্রায় ৫০০ জন দেশি অস্ত্র-শস্ত্র, লাঠি-সোটা নিয়ে নির্বাচনী কর্মকর্তা ও পুলিশ সদস্যদের মারধর করে। এসময় তারা সুলতান মাহমুদের কাছ থেকে ৭ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় বলেও অভিযোগ রয়েছে।

মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, এসময় পুলিশ ও আনসার সদস্যরা কয়েকজনকে জাপটে ধরলে তারা পুলিশের কাছে থাকা আগ্নেয়াস্ত্র (শর্টগান) ও অ্যালোমেনুশন (শর্টগানের গুলি) জোরপূর্বক ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। পাশাপাশি প্রিজাইডিং অফিসার সুলতান মাহমুদের কাছে থাকা ব্যালট বাক্স ও নির্বাচনী মালামাল ছিনতাইয়ের চেষ্টা করে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়ি ও রিকুইজিশনের গাড়ি ভাঙচুর করে দুস্কৃতিকারীরা। এতে  প্রায় ৭০ লাখ টাকার ক্ষতি সাধিত হয়েছে। 

এসময় প্রিজাইডিং অফিসার সুলতান মাহমুদের নির্দেশে পুলিশ দুই রাউন্ড গুলি ছুড়লে দুস্কৃতিকারীরা পালিয়ে যায়। 

পরে পুলিশের ভ্রাম্যমাণ দলের সদস্যরা ও বিজিবি ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যায়। 


© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com