এসআইর বিরুদ্ধে ৩৩টি মোবাইল ও টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

প্রকাশ: ২৩ জানুয়ারি ২২ । ২২:৩৩ | আপডেট: ২৩ জানুয়ারি ২২ । ২২:৩৩

ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি

কিশোরগঞ্জের ভৈরব থানার এসআই মো. ইসমাইলের বিরুদ্ধে চোরাচালানিদের কাছ থেকে জব্দ করা ৩৩টি মোবাইল ফোন ও দেড় লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তিনি।

জানা গেছে, গত শুক্রবার দুপুরে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের নাটাল মোড় এলাকায় সিলেট থেকে ঢাকাগামী যাত্রীবাহী একটি বাসে অভিযান চালান এসআই ইসমাইল। বাস থেকে বিপুল পরিমাণ অবৈধ মোবাইল ফোন জব্দ, দেড় লাখ টাকাসহ লিমন, আলী, সিয়াব ও আশরাফুল জহির নামে চারজনকে আটক করেন তিনি। পরে তাদের থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। থানায় নেওয়া পর ২২৪টি অবৈধ মোবাইল জব্দ করার কথা বললেও দেড় লাখ টাকার কথা ওসিকে জানাননি এসআই ইসমাইল। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ওই চারজনকে আসামি করে থানায় মামলা করেছে। এজাহারেও টাকার কথা উল্লেখ করা হয়নি।

তবে আসামিদের স্বজনরা অভিযোগ করেন, আসামিদের কাছে মোট ২৫৭টি বিদেশি মোবাইল ফোন ছিল এবং টাকা ছিল দেড় লাখ। এসআই ইসমাইল ৩৩টি মোবাইল ও দেড় লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছেন।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে এসআই ইসমাইল বলেন, গণনায় ২২৪টি বিদেশি মোবাইল ফোন পেয়েছি। বাকি ৩৩টি মোবাইলের কথা জানি না। কিছু টাকা পেয়েছি যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তার কাছে জমা দিয়েছি।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই রফিকুল ইসলাম বলেন, জব্দ করা ২২৪টি মোবাইল ও ৯৬ হাজার টাকা নগদ পেয়েছি। এজাহারে টাকার কথা উল্লেখ নেই কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, তদন্তের পর সবকিছু জানা যাবে।

ভৈরব থানার ওসি মো. গোলাম মোস্তফা বলেন, কোনো কর্মকর্তা যদি মোবাইল ফোন আত্মসাৎ করে থাকেন, তদন্তে তা প্রমাণ হলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com