নিজের ঠিকানা ও পরিচয়ে বড় হবে নারী

প্রকাশ: ০৮ মার্চ ২২ । ০০:০০ | আপডেট: ০৮ মার্চ ২২ । ১০:৩৪ | প্রিন্ট সংস্করণ

রোকেয়া কবীর, নির্বাহী পরিচালক, বিএনপিএস

রোকেয়া কবীর

বর্তমানে সমাজ ও রাষ্ট্র্রে আমরা সবচেয়ে বেশি যে সংকট মোকাবিলা করছি, তা হচ্ছে বাল্যবিয়ে ও নারী নির্যাতন। নারী ও কিশোরীরা পরিবার, অফিস-আদালত, যানবাহন, রাস্তাঘাট, কর্মক্ষেত্র, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন জায়গায় যৌন হয়রানি ও নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। কভিড-১৯ পরিস্থিতিতে তা আরও বেড়েছে। এ সংকটের প্রতিকারের লক্ষ্যে সরকারের পাশাপাশি নারী সংগঠনসহ বেসরকারি সংগঠনগুলোও উদ্যোগ নিচ্ছে। কিন্তু এর রাশ টেনে ধরা যাচ্ছে না। ২০১৩ সালে একটা নারীনীতি হয়েছে, কিন্তু সব সমানাধিকার আসেনি।

বলা হয়, সাংস্কৃতিক অবক্ষয়ের কারণে নারী নির্যাতন বেড়েছে। এটা ঠিক নয়। কারণ নারী নির্যাতন, নারীর প্রতি অবমাননা আমাদের সংস্কৃতিতেই আছে। প্রথমত, নারীরা পরিবার থেকে বৈষম্যের শিকার হয়। নারীর নিজের কোনো ঠিকানা নেই। নারীকে পরিবার থেকেই দুর্বল করা হচ্ছে, আর পুরুষকে তৈরি করা হচ্ছে আধিপত্য বিস্তারের জন্য। সংবিধানে বলা হয়েছে- নারী-পুরুষ, ধর্ম-বর্ণ পরিশেষে কারও প্রতি বৈষম্য করা যাবে না। কিন্তু বৈষম্যমূলক অনেক আইন রয়ে গেছে। আইন কমিশন ও সংসদের কাছে দাবি জানাতে হবে এসব আইন দ্রুত বাতিল করতে। নারীর সমান অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। নারী নিজের ঠিকানা ও পরিচয় নিয়ে বড় হবে। এ ছাড়াও উত্তরাধিকারসহ পারিবারিক সম্পদ ও সম্পত্তিতে নারীর সমান অধিকার প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেওয়া জরুরি। এসব ক্ষেত্রে সমান অধিকার না থাকায় পরিবার ও সমাজে নারী ও কিশোরীদের অন্যের গলগ্রহ হয়ে থাকতে হয়, যা নারীর অর্থনৈতিক ও সমাজিক ক্ষমতায়নের প্রধান অন্তরায়। সম্পদ ও সম্পত্তিতে সমান অধিকার প্রতিষ্ঠা হলে নারীর ক্ষমতায়নে মানসিক ও বাস্তব বাধা দূর হবে, যা জেন্ডার সমতা প্রতিষ্ঠার পথকে প্রশস্ত করবে। বিভিন্ন উদ্যোগ জোরদার করে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য (এসডিজি) অর্জনেও দৃশ্যমান অবদান রাখতে পারবে। জাতীয় নারী উন্নয়ন নীতির বৃহদাংশই আমরা এখনও বাস্তবায়ন করতে পারিনি। আরেকটি বিষয় লক্ষণীয়, আমাদের নাগরিক সমাজের সদস্যদের সরকারের বিরুদ্ধে যেভাবে সোচ্চার হতে দেখা যায়; বৈষম্যের বিরুদ্ধে সেভাবে সরব হতে দেখা যায় না। সব নাগরিকের সমানাধিকারের যে প্রত্যয় সংবিধানে ঘোষিত হয়েছে, তা বাস্তবে প্রতিষ্ঠা করা না গেলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়িত হবে না।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭১৪০৮০৩৭৮ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com