বরগুনায় এমপির বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগে বৃদ্ধের আমরণ অনশন

প্রকাশ: ১০ মার্চ ২২ । ১৮:০০ | আপডেট: ১০ মার্চ ২২ । ১৮:০২

বরগুনা প্রতিনিধি

বরগুনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমনের বিরুদ্ধে জমি জবরদখল করে স্থাপনা নির্মাণের অভিযোগ এনে ওই জমি দখলমুক্ত করার দাবিতে আমরণ অনশনে বসেছেন বেলায়েত হোসেন নামে এক বৃদ্ধ।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় বরগুনা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে জায়নামাজ বিছিয়ে অনশনে বসেন বেলায়েত হোসেন নামে ওই বৃদ্ধ। তিনি বরগুনা জেলার পাথরঘাটা উপজেলার রায়হানপুর ইউনিয়নের পূর্ব লেমুয়া গ্রামের বাসিন্দা।

এদিন বেলা ১টার দিকে একজন ব্যক্তি সেখানে এসে ব্যানার ছিড়ে তাকে অপদস্ত করে অনশন থেকে তাকে উঠিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছেন বলেও অভিযোগ করেছেন জমি দখলমুক্ত করার দাবিতে অনশনে বসা ওই ব্যক্তি।

ওই বৃদ্ধ অভিযোগ করেন, কাকচিড়া নৌ পুলিশ ফাঁড়ির সামনে কাকচিড়া-লেমুয়া সড়কের দক্ষিণ পাশে তার পৈত্রিকসূত্রে প্রাপ্ত জমি দখলে নিয়ে স্থাপনা নির্মাণ করছেন বরগুনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমন। কাজ শুরু করার পর তিনি এমপি রিমনের সাথে যোগাযোগ করলেও কোনো ফল হয়নি। পরে পাথরঘাটা থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছিলেন। কিন্ত কোনো সমাধান হয়নি। নিরুপায় হয়ে জমিতে স্থাপনা নির্মাণ বন্ধ ও দখলমুক্ত করার দাবিতে অনশনে বসেছেন তিনি।

জমির দলিলপত্র দেখিয়ে বেলায়েত হোসেন বলেন, বরগুনা জেলার পাথরঘাটা উপজেলার লেমুয়া মৌজার জেএল নং-০৪, এসএ খতিয়ান নং- ৫৪০/১১৬১ দাগ নং- ৩১৭০ এর ৩.৫০ শতাংশ জমি নিয়ে বিজ্ঞ আদালতে বন্টন মামলা বিচারাধীন রয়েছে। ওই মামলায় সম্প্রতি জমিতে স্থিতাবস্থা জারি করে আদেশ দিয়েছে বিজ্ঞ আদালত। কিন্ত আদালতের আদেশ অমান্য করে গত ২২ ফেব্রুয়ারি বিকেলে স্থানীয় সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমন ও তার অনুসারীরা কাকচিড়ার বাসিন্দা মাহবুব দালালকে দিয়ে ওই জমিতে মাটি কাটার কাজ শুরু করে।

তিনি আরও জানান, তিনি এতে বাঁধা দেয়ার পর বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংসার কথা হয়। কিন্ত গত ২৭ ফেব্রুয়ারি দুপুর একটার দিকে তিনি তার জমিতে গিয়ে দেখতে পান, সেখানে স্থাপনা নির্মাণের কাজ করছেন। পরের দিন ২৮ ফেব্রুয়ারি পাথরঘাটা থানায় জমি দখলের বিষয়টি উল্লেখ করে লিখিত অভিযোগ করেন।

এরই মধ্যে ভাই অসুস্থ হওয়ায় তাকে চিকিৎসার জন্য বরিশাল নিয়ে যান বেলায়েত হোসেন। ফিরে এসে গতকাল (বুধবার) দেখতে পান ওই জমিতে স্থাপনা নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন এমপি রিমন।

বেলায়েত হোসেন আরও বলেন, দুপুর একটার দিকে এমপি রিমনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের এক কর্মকর্তা এখানে এসে হুমকি ধামকি দিয়েছে। একইসঙ্গে আমার ব্যানার ছিড়ে আমাকে উঠিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন। 

এ প্রসঙ্গে বরগুনা জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান বলেন, বেলায়েত হোসেন অভিযোগ দিলে, তার জমির মালিকানা কাগজপত্র যাচাই বাছাই করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে বরগুনা -২ আসনের এমপি শওকত হাচানুর রহমান রিমন মুঠোফোনে বলেন, বেলায়েত হোসেনের দাবিকৃত খতিয়ানের ৩১৭০ দাগে আমি কাজ করছিনা। ৩১৭১ দাগে আমার ৫ শতাংশ জমি কেনা আছে। ওই জমিতে আমি কাজ করছি। অনশনের বিষয়টি বিষয়টি পুরোপুরি ‘রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র’। আমি সব কাগজ জেলা প্রশাসক ও পাথরঘাটা থানায় দিয়েছি। তিনি কাগজ পত্রে জমি পেলে দিয়ে দেওয়া হবে।

এদিকে বরগুনার পুলিশ সুপার মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর মল্লিক বলেন, আমি বেতাগী থানা পরিদর্শনে এসেছি। সেখান থেকে ফিরে অনশনে বসা ওই বৃদ্ধের অভিযোগের বিষয়ে খোঁজখবর নিয়ে ব্যবস্থা নেব। 

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭১৪০৮০৩৭৮ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com