প্রধান শিক্ষককে মারপিটের ঘটনায় সহকারী শিক্ষক বরখাস্ত

প্রকাশ: ২২ মার্চ ২২ । ১৫:৫১ | আপডেট: ২২ মার্চ ২২ । ১৫:৫১

মনিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি

অভিযুক্ত সহকারী শিক্ষক অহেদুজ্জামান জিবলু

যশোরের মনিরামপুরে বলিয়ানপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককের ওপর হামলা চালিয়ে বেধড়ক মারপিটের ঘটনায় অভিযুক্ত সহকারী শিক্ষক অহেদুজ্জামান জিবলুকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। তদন্ত করে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় উপজেলা শিক্ষা অফিসার সোমবার অফিস আদেশের মাধ্যমে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করেন। সংশ্লিষ্ট ক্লাষ্টারের সহকারী শিক্ষা অফিসার ড. তৌহিদুর রহমান নুরুন্নবি মঙ্গলবার বরখাস্তের তথ্য নিশ্চিত করেন।

জানা যায়, উপজেলার ঢাকুরিয়া ইউনিয়নের বলিয়ানপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক অহেদুজ্জামান জিবলু গত ১৩ মার্চ শ্রেণিকক্ষে না গিয়ে অফিসে বসে মোবাইল ফোন নিয়ে আড্ডায় মেতেছিলেন। এ সময় প্রধান শিক্ষক রেজাউল হোসেন তাকে শ্রেণিকক্ষে পাঠদানের জন্য বার বার চাপ প্রয়োগ করেন। কিন্তু তিনি না শুনে মোবাইল ফোন নিয়েই ব্যস্ত থাকেন।

প্রত্যক্ষদর্শী সহকারী শিক্ষক আনিচুর রহমান ও ডলি রানী বিশ্বাস জানান, ১৩ মার্চ দুপুর দেড়টার দিকে তারা প্রধান শিক্ষকের সঙ্গে বৈঠকে বসে নতুন রুটিন তৈরি করেন। কিন্তু এ রুটিন নিয়ে সহকারী শিক্ষক অহেদুজ্জামান জিবলু আপত্তি করেন। পরে প্রধান শিক্ষক দুপুরের খাবার খেতে বসেন। এ সময় সময় ক্ষিপ্ত হয়ে সহকারী শিক্ষক অহেদুজ্জামান জিবলু চেয়ার নিয়ে প্রধান শিক্ষকের ওপর হামলা চালিয়ে বেধড়ক মারপিট করেন। এতে তার মাথা ফেটে যায়। পরে প্রধান শিক্ষককে উদ্ধারের পর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে উপজেলা শিক্ষা অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ করা হয়। ফলে উপজেলা শিক্ষা অফিসার সেহেলী ফেরদৌস ১৪ মার্চ সহকারী শিক্ষা অফিসার জহির উদ্দিন, ড. তৌহিদুর রহমান নুরুন্নবী ও নাজমুল হাসানের সমন্বয়ে তদন্ত টিম গঠন করেন।

তদন্ত টিমের সদস্য ঢাকুরিয়া ক্লাষ্টারের দায়িত্বে থাকা সহকারি শিক্ষা অফিসার ড. তৌহিদুর রহমান নুরুন্নবী জানান, তদন্তে সহকারী শিক্ষক অহেদুজ্জামান জিবলুর বিরুদ্ধে সব অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় যায়।

উপজেলা শিক্ষা অফিসার সেহেলী ফেরদৌস জানান, তদন্ত টিমের সুপারিশ অনুসারে সহকারী শিক্ষক অহেদুজ্জামান জিবলুকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এ ছাড়াও তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলার প্রস্তুতি চলছে। 

বরখাস্তের ঘটনায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করে প্রধান শিক্ষক রেজাউল হোসেন বলেন, একজন শিক্ষক হয়ে অন্য শিক্ষকের ওপর যেন আর কেউ এ ধরনের ন্যাক্কারজনক ঘটনা না ঘটায়।

তবে বরখাস্তের বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত শিক্ষক অহেদুজ্জামানের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি কল রিসিভড করেননি।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com