বিদ্রোহী প্রার্থীর অভিযোগ

ফলাফল শিট ঘষামাজা করে নৌকার প্রার্থীকে জয়ী ঘোষণা

প্রকাশ: ২৯ মার্চ ২২ । ১৭:৩৭ | আপডেট: ২৯ মার্চ ২২ । ১৭:৩৭

রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি

কুড়িগ্রামের রাজারহাটের বিদ্যানন্দ ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ফলাফল শিট ঘষামাজা করে নৌকা প্রার্থীকে বিজয়ী করার অভিযোগ তুলে সংবাদ সম্মেলন করেছেন প্রথম ফলাফলে বিজয়ী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আলমগীর হোসেন। মঙ্গলবার দুপুরে নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি অভিযোগ করেন, গত বছরের ২৬ ডিসেম্বর বিদ্যানন্দ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ফলাফলে তৈয়বখাঁ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট গণনা করে কর্তব্যরত প্রিসাইডিং অফিসার ও রাজারহাট মহিলা ডিগ্রি কলেজের সহকারী অধ্যাপক রাশেদুল ইসলাম প্রার্থীদেরকে ফলাফল শিট প্রদান করেন।

ফলাফল শিটে ওই কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী তাইজুল ইসলাম ১৭৫ ভোট এবং আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আলমগীর হোসেন ৩১০ ভোট প্রাপ্ত হন। পরে ওই রাতে রাজারহাট উপজেলা রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নজরুল ইসলামের নিকট ফলাফল জমার পূর্বে প্রিসাইর্ডিং অফিষার ফলাফল শিট ঘষামাজা করে নৌকার প্রার্থী তাইজুল ইসলামের ১ ভোট বাড়িয়ে ১৭৬ ভোট লিখে জমা প্রদান করেন। এতে করে ওই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ফল ৫ হাজার ১৬৬ ভোটে ড্র হয়ে যায়।

এ নিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী আলমগীর হোসেন হাইকোর্টে একটি রিট পিটিশন দাখিল করেন, যা বিচারাধীন রয়েছে বলে জানান তিনি। এছাড়া তিনি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের নিকট অভিযোগ করায় রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা জি এম সাহাতাব হোসেন তদন্ত করে ফলাফল নিয়ে অনিয়ম ও প্রিসাইডিং অফিসারের কর্তব্যে অবহেলার সত্যতা স্বীকার করে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন।

এর পরিপ্রেক্ষিতে নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে গত ২৭ মার্চ উক্ত কেন্দ্রের ভোট পুনরায় গণনার আয়োজন করেন রিটার্নিং অফিসার নজরুল ইসলাম। অসুস্থতার কারণে বিদ্রোহী প্রার্থী আলমগীর হোসেন সময়ের প্রার্থনা করেন।

কিন্তু সময় না দিয়েই তার অনুপস্থিতিতে রিটার্নিং অফিসার পুনর্ভোটে গণনার ফলাফলে আবারও মোটরসাইকেল প্রতীকের ২টি ভোট কমিয়ে দিয়ে ৩০৮ ভোট দেখিয়ে নতুন ফলাফল শিট অনুযায়ী নৌকা প্রতীকের প্রার্থী তাইজুল ইসলামকে বিজয়ী ঘোষণা করেন বলে লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করা হয়। তিনি প্রথম ফলাফল শিট বহাল রাখার দাবি জানান এবং নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশে অনিয়মে জড়িত রিটার্নিং অফিসার ও প্রিসাইডিং অফিসারের বিচার দাবি করেন।

প্রিসাইডিং অফিসার রাশেদুল ইসলাম জানান, প্রথমে ভুলবশত ফলাফল শিটে নৌকা প্রতীকের ১ ভোট কম হয়েছিল, পরে সংশোধন করে ১৭৬ ভোট করে দিয়েছি। পুনরায় গণনায় বিদ্রোহী প্রার্থীর মোটরসাইকেল প্রতীকে সিল না দিয়ে টিপ সহি দেওয়া ২টি ভোট বাতিল হওয়ায় তার ভোট কমেছে বলে জানান তিনি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান, যা হয়েছে নির্বাচনী বিধি অনুযায়ী করা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরে তাসনিম বলেন, ভোটের ফলাফল শিট ভিন্নরকম হওয়ার বিষয়ে প্রিসাইর্ডিং অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার বলতে পারবেন। নির্বাচনী আইন-শৃঙ্খলার বিষয়টি আমি দেখেছি।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭১৪০৮০৩৭৮ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com