আলীকদমে ইউপি নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগে মামলা

প্রকাশ: ১৩ মে ২২ । ০০:০০ | আপডেট: ১৩ মে ২২ । ১৩:২২ | প্রিন্ট সংস্করণ

লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধি

আলীকদম উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ করেছেন এক প্রার্থী। এ নিয়ে নির্বাচন কর্মকর্তা ও প্রতিদ্বন্দ্বী চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ১২৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন তিনি। সদর ইউপির চেয়ারম্যান প্রার্থী আনোয়ার জিহাদ নির্বাচন ট্রাইব্যুনালে মামলাটি করেন বলে বৃহস্পতিবার আইনজীবী মোহাম্মদ খলিল নিশ্চিত করেছেন।

মামলায় আসামি করা হয়েছে সদর ইউপির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন, নির্বাচন ও রিটার্নিং অফিসার আতিকুল ইসলাম চৌধুরীসহ বিভিন্ন ওয়ার্ডে নির্বাচনের সময় দায়িত্ব পালন করা ১২৭ প্রিসাইডিং ও সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার এবং পোলিং অফিসারকে।

আনোয়ার জিহাদের অভিযোগ, গত বছরের ২৮ নভেম্বর চারটি ইউপির নির্বাচন হয়। তিনি সদর ইউপিতে মোটরসাইকেল প্রতীকে অংশ নেন। নির্বাচনের দিন ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডে প্রতিপক্ষের পক্ষে বেশি ভোট দেখানো হয়। এ সময় এজেন্টদের কাছ থেকে ফরমে জোর করে সই নিয়েও রেজাল্ট শিট সরবরাহ করা হয়নি।

এ ছাড়া ৮ নম্বর ওয়ার্ডে ৮৯ দশমিক ৮৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডে ৯৯ দশমিক ১৯ শতাংশ ভোট কাস্টিং দেখানো হয়। এ নিয়ে বিভিন্ন দপ্তরে অনিয়মের প্রমাণ দিয়ে আবারও ভোট গণনার দাবি করলেও প্রতিকার পাওয়া যায়নি। এ জন্য ট্রাইব্যুনালে অভিযোগ করেছেন চেয়ারম্যান প্রার্থী আনোয়ার জিহাদ।

তিনি বলেন, 'তদন্তে কারচুপি প্রমাণ হলেও নির্বাচন কমিশন গেজেট প্রকাশ করে। তাই মামলা করতে বাধ্য হয়েছি।' তবে মামলার বিষয়ে কোনো মন্তব্য নেই বলে জানিয়েছেন বিজয়ী চেয়ারম্যান মো. নাছির উদ্দিন। তিনি বলেন, 'নির্বাচনে কোনো কারচুপি হয়নি।'

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আতিকুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, 'মামলার বিষয়টি শুনেছি। তদন্ত করে ট্রাইব্যুনাল পরবর্তী ব্যবস্থা নেবে। সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়েছে।'

এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মো. নাছির উদ্দিন নৌকা প্রতীকে, আনোয়ার জিহাদ মোটরসাইকেল ও বাদশা মিয়া আনারস প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭১৪০৮০৩৭৮ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com