কাপড় সেলাইয়ের আড়ালে ফাঁদে ফেলে নারীদের ধর্ষণ, দর্জি গ্রেপ্তার

প্রকাশ: ১৯ মে ২২ । ২২:৩৬ | আপডেট: ১৯ মে ২২ । ২২:৩৬

চট্টগ্রাম ব্যুরো

গ্রেপ্তার মো. রিয়াজ ওরফে জুবায়ের

চট্টগ্রাম নগরীর পাঁচলাইশ থানার আল মাদানি রোডে টেইলার্সের ব্যবসা করেন মো. রিয়াজ ওরফে জুবায়ের। এটি তার মূল পেশা নয়। এর আড়ালে রয়েছে নারীদের ফাঁদে ফেলে ধর্ষণের বিকৃত নেশা। তার কাছে কাপড় সেলাই করতে আসা সুন্দরী নারীদের ফোন নম্বর রেখে দেন তিনি।

পরে মোবাইল ফোনে গড়ে তোলেন প্রেমের সম্পর্ক। বিভিন্ন জায়গায় ঘুরতে নিয়ে গিয়ে তোলেন অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবি। সেই ছবি দেখিয়ে ব্ল্যাকমেইল করে দেদার চালিয়ে যান শারীরিক সম্পর্ক। তবে শেষ রক্ষা হয়নি। তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে বৃহস্পতিবার জানিয়েছেন র‌্যাব-৭-এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক নূরুল আবছার।

তিনি বলেন, এক নারীর অভিযোগের ভিত্তিতে বুধবার রাতে ফ্যাশন টেইলার্স নামে তাঁর নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে রিয়াজকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁর মোবাইল ফোনে অনেক নারীর নগ্ন ছবি পাওয়া গেছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এসব অপকর্মের কথা অকপটে স্বীকার করেছেন তিনি। বৃহস্পতিবার তাঁকে পাঁচলাইশ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। গ্রেপ্তার রিয়াজ ভোলার লালমোহনের চর কালাচাঁদ গ্রামের সিরাজের ছেলে। তিনি চট্টগ্রাম নগরের দক্ষিণ শুল্কবহর ইদ্রিস কলোনিতে থাকতেন।

র‌্যাব জানায়, কাপড় সেলাই করতে গিয়ে রিয়াজের সঙ্গে পরিচয় হয় এক পোশাক কর্মীর। দোকানের টালি খাতায় উল্লেখ করা ফোন নম্বর নিয়ে তাঁকে প্রায়ই ফোন করতেন এই দর্জি। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এই সুযোগে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে অন্তরঙ্গ মুহূর্তের কিছু ছবি তোলেন রিয়াজ। সেই ছবি দেখিয়ে ওই পোশাক কর্মীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা করে প্রথমে ব্যর্থ হয়ে সেগুলো মুছে দেওয়ার বিনিময়ে ২০ হাজার টাকা আদায় করেন। কিন্তু ছবিগুলো না মুছে হুমকি দিয়ে তাকে ধর্ষণ করেন। এর পর বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দুই বছর ধরে তাঁর সঙ্গে নিয়মিত শারীরিক সম্পর্ক করে আসছেন রিয়াজ। সম্প্রতি তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিলে মুখ খোলেন ওই পোশাক কর্মী। এ বিষয়ে র‌্যাবকে লিখিত অভিযোগ দিলে দর্জি রিয়াজকে গ্রেপ্তার করা হয়।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭১৪০৮০৩৭৮ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com