৮ ঘণ্টা পর নিয়ন্ত্রণে ওষুধ কারখানার আগুন

প্রকাশ: ২৩ মে ২২ । ২১:০৪ | আপডেট: ২৩ মে ২২ । ২১:১০

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি

টানা আট ঘণ্টা চেষ্টার পর কালিয়াকৈরের স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালসের ওষুধ কারখানার আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। 

ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক (পরিকল্পনা, উন্নয়ন ও প্রশিক্ষণ) লেফটেন্যান্ট কর্ণেল রেজাউল করিম গণমাধ্যমকে জানান, ১৯ টি ইউনিটের চেষ্টায় সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে ওই কারখানায়। 

ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে রেজাউল করিম বলেন, কারখানার ওয়েল্ডিং ওয়ার্কসের ফুলকি থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে ধারণা করা হচ্ছে। কারখানার নিজস্ব ফায়ার ফাইটিং ব্যবস্থাও ছিল দুর্বল। এতে আগুন নেভাতে সময় বে‌শি লে‌গে‌ছে ।

আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করেছে কালিয়াকৈর, মির্জাপুর, টাঙ্গাইল, গাজীপুর ও সাভার ইপিজেডের ইউনিটগুলো।

সোমবার দুপুর ১২টা ২০ মিনিটের দিকে ঔষধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান স্কয়ার ফার্মাসিটিউক্যালসের   লার্জ ভলিউম প্যারেনটাল ইউনিটে (এলভিডি) আগুনের সূত্রপাত হয়।

কারখানার শ্রমিকরা সমকালকে জানান, এলভিপি প্রজেক্টের তিনতলা ভবনের দ্বিতীয় তলার গোডাউনে (এলভিডি ইউনিটে) অনেক ড্রামে কেমিকেল ছিল। এই কেমিকেল ওষুধ তৈরিতে ব্যবহৃত হত। 

তখন ওই ভবনের নিচতলায় শতাধিক শ্রমিক খাবার স্যালাইন তৈরির কাজে ব্যস্ত ছিলেন। আগুন লাগলে শ্রমিকরা বেরিয়ে আসেন। কারখানার নিজস্ব অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র দিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টাও বিফলে যায়। 

খবর পেয়ে কালিয়াকৈর ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট আগুন নেভানোর কাজ শুরু করে। বিকেলের দিকে আগুনের তীব্রতা বেড়ে যাওয়ায় মির্জাপুর, টাঙ্গাইল, সাভার ইপিজেড, গাজীপুর থেকে ১৬টি ইউনিট একযোগে কাজ শুরু করে। 

দুপুরের পর থেকে কালো ধোঁয়ায় পুরো এলাকা আচ্ছন্ন হয়ে গেলে এলাকাবাসীর মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গাজীপুর শিল্প পুলিশ-২, কালিয়াকৈর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে কাজ শুরু করে। 


© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭১৪০৮০৩৭৮ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com