মা-ছেলে হত্যা

ধর্ষণের পরিকল্পনা ছিল উকিল বাবার, খুনের পরিকল্পনা ছিল চাচার

প্রকাশ: ২৫ মে ২২ । ২২:১৬ | আপডেট: ২৫ মে ২২ । ২২:৩৬

রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি

কুড়িগ্রামের রৌমারীতে অনৈতিক প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ও প্রতিহিংসায় পরিকল্পিতভাবে গলা কেটে হত্যা করা হয় এক গৃহবধূ (২৭) ও তার পাঁচ মাস বয়সের শিশুসন্তানকে। এ ঘটনার পর ছায়াতদন্ত ও আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালায় র‌্যাব-১৪ এর আভিযানিক দল। পরে অভিযান চালিয়ে হত্যার মূল পরিকল্পনাকারীসহ দু’জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।

গ্রেপ্তাররা হলেন নিহত গৃহবধূর উকিল বাবা উপজেলার শৌলমারী ইউনিয়নের ওকড়াকান্দাগ্রামের গোলাম শহিদের ছেলে জাকির হোসেন ওরফে জফিয়াল (২৮) ও নিহতের দেবর মৃত বাহাদুরের ছেলে চাঁন মিয়া (৪৩)। এ ঘটনায় বুধবার দুপুর ১২টার দিকে রৌমারী অফিসার্স ক্লাবে প্রেস ব্রিফিংয়ের আয়োজন করেন জামালপুর র‌্যাব-১৪, সিপিসি-১। 

র‌্যাব-১৪, সিপিসি-১, জামালপুরের কোম্পানি কমান্ডার স্কোয়াড্রন লিডার আশিক উজ্জামান বলেন, ঘটনাটি নিয়ে মিডিয়ায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। পরে ২২ মে নিহতের বাবা বাদী হয়ে রৌমারী থানায় অজ্ঞাতদের আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

ঘটনার পর র‌্যাবের জামালপুর ক্যাম্পের প্রতিনিধি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং ছায়াতদন্ত শুরু করে আসামি গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালান। পরে বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ ও বিশ্লেষণের মাধ্যমে আসামিদের চিহ্নিত করে অবস্থান নিশ্চিত করা হয়।

মঙ্গলবার (২৪ মে) দুপুর ২টার দিকে র‌্যাবের দল জামালপুরের বকশীগঞ্জ থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে আসামি জাকির হোসেন ওরফে জফিয়ালকে আটক করে। তার দেওয়া তথ্যমতে, রৌমারী উপজেলার শৌলমারী ইউনিয়নের বোয়ালমারী গ্রামের এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে এ হত্যাকাণ্ডে সম্পৃক্ত প্রধান অভিযুক্ত নিহত গৃহবধূর দেবর চাঁন মিয়াকে আটক করা হয়।

র‌্যাবের ওই কর্মকর্তা হত্যার বিবরণ দিয়ে বলেন, নিহত গৃহবধূর স্বামী চার ভাইয়ের এদের মধ্যে সবার বড়। তার স্বামীর আগেই ছোট ভাই চাঁন মিয়া বিয়ে করেন। তার ঘরে কন্যাসন্তানের জন্ম হয়। পরে চাঁন মিয়ার ভাই বিয়ে করেন। তারপর তাদের ঘরে একটি ছেলেসন্তান জন্ম হয়। ছেলে জন্মের পর চাঁন মিয়ার হিংসা শুরু হয়। এ ছাড়াও তার বড় ভাইয়ের স্ত্রী দেখতে সুন্দর, শিক্ষিত মেয়ে হওয়ায় তা সহ্য করতে পারতেন না দেবর চাঁন মিয়া।

‘অন্যদিকে একই এলাকার জাকির হোসেন ওরফে জফিয়াল বিয়েতে উকিল বাবা হওয়ার সুবাদে ওই গৃহবধূর বাড়িতে প্রায়ই যাতায়াত করতেন এবং তাকে অনৈতিক প্রস্তাব দেন। এ প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ক্ষিপ্ত দেবরকে ওই গৃহবধূর চরিত্র নিয়ে নানা উসকানি দেয় ওই উকিল বাবা।’ যোগ করেন তিনি।

র‌্যাব কর্মকর্তা আশিক উজ্জামান আরও জানান, পরে দু’জন মিলে পরিকল্পনা করেন; বড় ভাইয়ের শিশুসন্তানকে হত্যা করবেন চাঁন মিয়া এবং উকিল মেয়েকে ধর্ষণ করবেন উকিল বাবা জফিয়াল। পরিকল্পনার অংশ হিসেবে ঘটনার দিন শিশুসন্তানের চিকিৎসার জন্য ভিকটিমকে কুড়িগ্রাম নিয়ে যান উকিল বাবা জাকির হোসেন জফিয়াল। পরে কুড়িগ্রাম থেকে বাড়ি ফেরার পথে রৌমারী বাজার থেকে প্রয়োজনীয় ওষুধ ও একটি ফ্লাক্স কিনে শ্বশুরবাড়িতে যান ওই গৃহবধূ।

‘সেখান থেকে ছেলেকে নিয়ে তার বাবার বাড়ির উদ্দেশে নির্জন এলাকায় পৌঁছলে আগ থেকে ওত পেতে থাকেন তার দেবর চাঁন মিয়া ও  উকিল বাবা জাকির হোসেন জফিয়াল। এ সময় তারা জোরপূর্বক রৌমারী সদর ইউনিয়নের নতুনবন্দর গ্রামের জনৈক আব্দুর সবুর মিয়ার পুকুরের পূর্বপাড়ে নিয়ে প্রথমে শিশুকে কোলে রাখেন দেবর চাঁন মিয়া।’

‘এদিকে উকিল মেয়েকে জোর করে ধর্ষণের চেষ্টা চালান তার উকিল বাবা জফিয়াল। এ সুযোগে কোলে থাকা শিশুসন্তান ভাতিজার গলায় ধারালো ছুরি চালিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করেন দেবর চাঁন মিয়া। শিশু হাবিবের মৃত্যু নিশ্চিত করে তার ভাবির দিকে ছুটে যান দেবর চাঁন মিয়া। ওই ধারালো ছুরি দিয়ে ভাবি হারেনার ঘাড়ে কোপ দেয় দেবর। এ সময় চাঁন মিয়ার হাত থেকে ছুরি নিয়ে হারেনার গলায় কোপ দেন দেয় উকিল বাবা জাকির হোসেন জফিয়াল। পরে নিশ্চিত মৃত্যু ভেবে চলে যান দু’জনই।’ জানান তিনি।

প্রেস ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন র‌্যাব-১৪, সিপিসি-১, জামালপুর ক্যাম্পের স্কোয়াড কমান্ডর এএসপি এমএম সবুজ রানা। এছাড়াও বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিকস মিডিয়ার কর্মী এ সময় উপস্থিত ছিলেন। র‌্যাবের হাতে আটক ওই দুই আসামিকে থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন রৌমারী থানার ওসি মোন্তাছের বিল্লাহ।

প্রসঙ্গত, ২১ মে শনিবার সকালে রৌমারী উপজেলার সদর ইউনিয়নের নতুনবন্দর নামক এলাকায় বাবার বাড়ির এক প্রতিবেশীর পুকুরের কিনারায় গলা কাটা অবস্থায় গৃহবধূ ও ওই পুকুরের পাশে ধানখেতে তার পাঁচ মাস বয়সের শিশুসন্তানের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পরে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তারও মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় নিহতের বাবা বাদী হয়ে রৌমারী থানায় অজ্ঞাতদের আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭১৪০৮০৩৭৮ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com