নির্যাতন সইতে না পেরে ছেলেকে পুলিশে দিলেন বাবা

প্রকাশ: ২৭ মে ২২ । ১৬:৫৫ | আপডেট: ২৭ মে ২২ । ১৬:৫৫

ইন্দুরকানী (পিরোজপুর) প্রতিনিধি

অভিযুক্ত অমিত চন্দ্র শীল

পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে নির্যাতন সইতে না পেরে ছেলেকে পুলিশে সোপর্দ করেছেন তার বাবা। শুক্রবার দুপুরে উপজেরার ইন্দুরকানী বাজরে এ ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্ত অমিত চন্দ্র শীল (২৫) ইন্দুরকানী বাজরের নরসুন্দর অমল চন্দ্র শীলের (৬০) ছেলে।

ইন্দুরকানী বাজরে বাবার সঙ্গে একই দোকানে নরসুন্দরের কাজ করে অমিত। কিন্তু প্রায়ই সে নেশাগ্রস্ত হয়ে সামান্য কারণে তার বাবা-মাকে মারধর ও নির্যাতন করে বলে অভিযোগ করেছেন অমিতের বাবা।

ইন্দুরকানী থানার ওসি মো. এনামুল হক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জানা যায়, শুক্রবার সাপ্তাহিক বাজারের দিন হওয়ায় দোকানের চাপ তুলনামূলক বেশি থাকে। এদিন অমিতকে দোকানে কাজ করতে বললের সে চাকু নিয়ে তার বাবার দিকে তেড়ে যায় এবং তাকে গলা ধাক্কা দিয়ে দোকান থেকে বের করে দেয়। বিষয়টি বাজারে ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

এ ঘটনায় অমিতের বাবা অমল চন্দ্র পুলিশের সামনে ছেলের নির্যাতনের বর্ণনা দিতে গিয়ে অঝোরে কাঁদেন। এরপর লিখিত অভিযোগ দিয়ে ছেলেকে পুলিশের হাতে তুলে দেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে অমল চন্দ্র বলেন, ছেলের এমন নির্যাতন থেকে আমি ও আমার স্ত্রী বাঁচতে চাই। তাই বাধ্য হয়ে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছি।

ইন্দুরকানী থানার ওসি মো. এনামুল হক জানান, ছেলের নির্যাতনের শিকার বাবা নির্যাতন সইতে না পেরে তার ছেলেকে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে। এ ব্যাপরে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। তাকে সংশোধনের জন্য বরিশাল মাদক নিরাময় কেন্দ্রে পাঠানো হবে।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭১৪০৮০৩৭৮ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com