কৃষ্ণকুমার কুন্নাথকে চক্রান্ত করে মেরে ফেলা হয়েছে, অভিযোগ দিলীপ ঘোষের

প্রকাশ: ০২ জুন ২২ । ১২:৩২ | আপডেট: ০২ জুন ২২ । ১২:৩২

কলকাতা প্রতিনিধি

কৃষ্ণকুমার কুন্নাথ। ফাইল ছবি

সংগীতশিল্পী কৃষ্ণকুমার কুন্নাথকে চক্রান্ত করে মেরে ফেলা হয়েছে। এটি হত্যা। অপরাধবোধ থেকেই দেওয়া হয়েছে গান স্যালুট। 

বৃহস্পতিবার সকালে কলকাতার নিউটাউন ইকোপার্কে প্রাতঃভ্রমণে এসে এমন বিস্ফোরক অভিযোগ করেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ। 

বিজেপির এ নেতা বলেন, একটি লোককে হত্যা করা হলো। অমিত শাহ বলেছিলেন, বাঙ্গাল মে যাওগে তো মারে যাওগে। আজ বাংলায় এসে লোকটা বেঘোরে মরে গেল। এটি কলেজের প্রোগ্রাম নয়। তৃণমূল পার্টির প্রোগ্রাম। ওরা লোক জড়ো করেছে। নেতারা অর্গানাইজ করেছে। ওকে দিয়ে জোর করে একের পর এক গান গাইয়েছে। উনি পারছিলেন না। চলে যেতে চাইছিলেন। ওকে চক্রান্ত করে মেরে ফেলা হয়েছে। এটি হত্যা। এটি থেকে যে অপরাধবোধ তৈরি হয়েছে, তা ঢাকা দিতে গান স্যালুট। আর ওনার অভ্যাস আছে, মৃতদেহ চুরি করে নেওয়ার। 

দিলীপ ঘোষ আরও বলেন, অসুস্থ হওয়ার পর হাসপাতালে না নিয়ে গিয়ে হোটেলে নিয়ে যাওয়া হলো কেন? কেকে তো নিজে ঠিক করবেন না। উনি তখন অসুস্থ। বাকিরা কি করছিল? কার দায়িত্ব ছিল? উনি অসুস্থ বোধ করছেন, পাশে থাকা লোকজন চিৎকার করছে। একটা বদ্ধ জায়গায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা গান করানো হয়েছে। উল্লাস করছে। অমানবিক ঘটনা। তদন্ত হোক।

তিনি প্রশ্ন তুলে বলেন, এর পর কী দেশের বড় তারকারা আর কলকাতায় আসবেন? এবার তারাই ঠিক করবেন, তারা কী করবেন। বাংলার শিল্পীরা বলেছেন, এই জন্য আমরা নজরুল মঞ্চে যাই না। আমাদের বাংলার শিল্পীরা যেতে সাহস করেন না। কেন এই ধরনের পরিবেশ তৈরি করা হয়েছে। আনন্দকে দুঃখে পরিণত করার যে চক্রান্ত এর পেছনে কে বা কারা। সব জায়গায় রাজনীতি। সবকিছুর মধ্যে রাজনীতিকে টেনে গিয়ে তার থেকে ভোট নিতে হবে। মানুষের জীবনের মূল্য ভাবার দরকার আছে।


© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭১৪০৮০৩৭৮ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com