পায়ের তলায় শর্ষে

কোলাহল ছেড়ে...

প্রকাশ: ১১ আগস্ট ২২ । ০০:০০ | আপডেট: ১১ আগস্ট ২২ । ০৯:৩৯ | প্রিন্ট সংস্করণ

মুমতাহিনা টয়া

ভাওয়াল রিসোর্টে [বাঁ থেকে] টয়া, জোভান, শাওন ও সাফা কবির

সৃষ্টিকর্তা পৃথিবীর সুন্দর রূপ দিয়েছেন। এর রূপ যে কত সুন্দর, তা নিজ চোখে না দেখলে বোঝানো যাবে না। ছোটবেলায় অনেকের কাছে সে গল্প শুনেছি। পৃথিবীতে অনেক সুন্দর সুন্দর দেশ আছে, সেসব দেশের রাস্তাঘাট অনেক পরিপাটি। দৃষ্টিনন্দন সাজসজ্জা। ঠিক যেন রূপকথার মতো। কল্পনায় অনেকবার সে রাজ্যে হারিয়েও গেছি আমি। অভিনয়ের সুবাদে বিশ্বের অনেক দেশেই আমার যাওয়া হয়েছে। ব্যক্তিগতভাবে অনেক দেশে ঘুরতে গিয়েছি। নতুন কোনো দেশে প্রথম ভ্রমণ মানেই অন্য রকম এক অভিজ্ঞতা। জীবনে অসংখ্যবার এমন অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হয়েছি। নতুন দেশ, নতুন সংস্কৃতি, নতুন নতুন মানুষ- সব মিলিয়ে অন্য রকম এক ভালো লাগা।

নদী, পাহাড়, সাগর আমাকে ভীষণ টানে। সমুদ্রপাড়ের কথা যদি বলতেই হয়, তাহলে কক্সবাজারের কথাও বলতে হবে। পৃথিবীর সবচেয়ে বড় সমুদ্রসৈকত আমাদের দেশে- এটা ভাবতে খুব ভালো লাগে। কতবার কক্সবাজার গেছি, এর কোনো হিসাব নেই। কেউ বিশ্বাস করুক বা না করুক, এটা সত্য যে, যত দেশেই গেছি, নিজ দেশ ভ্রমণের মতো আনন্দ কোথাও পাইনি। শুটিংয়ের উদ্দেশ্যে গেলেও একটু অবসর খুঁজে নিই বেড়ানোর।

ঈদের ছুটিতে সাধারণত প্রতি বছরই দেশের বাইরে যাওয়া হয়। এবার স্বামী সৈয়দ জামান শাওন, সাফা কবির ও জোভান মিলে নেপাল যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিলাম। কিন্তু একজনের পাসপোর্ট না থাকায় বাধ্য হয়ে দেশের মধ্যেই ঘুরতে হয়েছে। গিয়েছিলাম গাজীপুরের ভাওয়াল রিসোর্টে। কল্পনার রাজ্যের চেয়েও অনেক সুন্দর এই জায়গাটি। কী থেকে কী করব, ঠিক করতে পারছিলাম না। বলা যায়, আনন্দে আত্মহারা হয়ে গিয়েছিলাম। খুশিতে জীবনে এমন আত্মহারা কমই হয়েছি। সুন্দর একটি দিন কাটিয়েছি সেখানে। কোনো জায়গায় বেড়াতে গেলে কাছের মানুষেরা থাকলে খুব ভালো লাগে। গল্প কথায় ও আড্ডায় আনন্দময় দিন কাটে। সে রকমই একটি ট্যুর ছিল ওই রিসোর্টে। বছরজুড়েই শুটিং ব্যস্ততা থাকে। বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে আড্ডাবাজির সময় কই। দেখা গেল জোভানের কিংবা সাফা কবিরের সঙ্গে একই সেটে কাজ করলেও আড্ডাবাজি তো দূরের কথা, মন খুলে কথা বলারও সময় হয় না। ঈদের ছুটি বলে কথা। কিছুটা বিরতি পেয়েছিলাম। ঘুরতে যাব না তা কী করে হয়! এ রকম সুযোগ পেলে ছুটে যাই প্রকৃতির সান্নিধ্যে। জোভান, সাফা, শাওন এ সময়ের ব্যস্ত অভিনয়শিল্পী। ঘোরাঘুরির জন্য একসঙ্গে সময় বের করা সবার জন্য খুবই মুশকিল। আমাদের বহুদিনের পরিকল্পনা ছিল প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ঘেরা এ রকম একটি রিসোর্ট থেকে ঘুরে আসার। চারজনের সময়-সুযোগ হয়েছে বলেই সেখানে যাওয়া হয়েছে। সবাই ভাওয়াল রিসোর্টে নিজেদের মতো সময় পার করেছি। এত সুন্দর সময় কাটিয়েছি যে, সেখানে থেকে আসতেই মন চাইছিল না। তবে সুন্দর ভ্রমণের অভিজ্ঞতা নিয়ে বাড়ি ফিরেছি।

ব্যস্ত নাগরিক জীবনে এ রকম অবসর আসলে খুবই প্রয়োজন। কাজে নতুন গতি পাওয়া যায়। রিসোর্ট থেকে ফিরে যে যার কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়েছি। কিন্তু ভ্রমণ আনন্দের রেশ রয়ে গেছে। এ আড্ডাবাজি স্মৃতির পাতায় থাকবে বহুদিন...।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭১৪০৮০৩৭৮ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com