ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের লাঠিপেটা

বরগুনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার প্রত্যাহার

প্রকাশ: ১৬ আগস্ট ২২ । ১৮:৪৩ | আপডেট: ১৬ আগস্ট ২২ । ১৮:৪৮

বরিশাল ব্যুরো ও বরগুনা প্রতিনিধি

বরগুনায় ছাত্রলীগের শোক দিবসের মিছিলে সংগঠনের পদবঞ্চিত প্রতিপক্ষ গ্রুপের হামলা এবং হামলা থামাতে গিয়ে পুলিশের লাঠিপেটার ঘটনায় বরগুনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহররম আলীকে তার কর্মস্থল থেকে সরিয়ে আনা হয়েছে।

তাকে বরিশাল রেঞ্জ পুলিশের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) কার্যালয়ে বিশেষ দায়িত্বে নিযুক্ত করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে রেঞ্জ ডিআইজি এসএম আক্তারুজ্জামান এই আদেশ দিয়েছেন।

মঙ্গলবার বিকেলে ডিআইজি এসএম আক্তারুজ্জামান মহররম আলীকে বরগুনা থেকে প্রত্যাহারের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সোমবার বরগুনার ওই ঘটনার পর পুলিশের পক্ষ থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তাই নিরপেক্ষ তদন্তের স্বার্থে মহররম আলীকে আপাতত রেঞ্জ কার্যালয়ে বিশেষ দায়িত্ব দেওয়া হয়।

সোমবার বরগুনায় জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে জেলা ছাত্রলীগের শোকমিছিলে সংগঠনের পদবঞ্চিত প্রতিপক্ষ গ্রুপ ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে হামলা চালায়। জেলা শিল্পকলা একাডেমির সামনে এই ঘটনার সময় ইটপাটকেলে পুলিশের একটি গাড়ির সামনের কাচ ভেঙে যায়। এ সময় পুলিশ ছাত্রলীগের ওই পক্ষটিকে নিবৃত করতে বেধড়ক লাঠিপেটা করে।

বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর সামনেই পুলিশের লাঠিচার্জের ঘটনা ঘটে। এ সময় সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু ও কর্তব্যরত অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহররম আলীর মধ্যে লাটিচার্জের ঘটনা নিয়ে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়। এ ঘটনা তদন্তে সোমবার রাতেই পুলিশের পক্ষ থেকে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সোমবার রাতে সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু একটি শোকসভায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘পুলিশের উদ্দেশ্যই ছিল ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের লাঠিপেটা করা।’ এ সময় তিনি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহররম আলীকে প্রত্যাহার ও তার বিচার দাবি করেন।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭১৪০৮০৩৭৮ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com