উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতিকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে

প্রকাশ: ১৭ আগস্ট ২২ । ১০:৫৪ | আপডেট: ১৭ আগস্ট ২২ । ১১:২০

বরগুনা প্রতিনিধি

আহত উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি মো. মোয়াজ্জেম হোসেন

বরগুনার আমতলী উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি মো. মোয়াজ্জেম হোসেন খানকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে কয়েকজন ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার রাত পৌনে ৯টার দিকে আমতলী পৌর শহরের আল হেলাল মোড়ে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মঙ্গলবার রাত পৌনে ৯টার দিকে মোয়াজ্জেম হোসেন খান আল হেলাল বাজারের মোড়ে যান। ওই স্থানে পৌঁছালে উপজেলা ছাত্রলীগ সহ-সভাপতি সবুজ ম্যালাকার, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ইফতেখার আহম্মেদ তোহা, ছাত্রলীগ সদস্য শাহাবুদ্দিন সিহাব ও রুহুল আমিন স্বেছাসেবকলীগ সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন খানকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপাতে থাকেন। এতে তার বাম পা, মাথা ও শরীরের বিভিন্ন স্থান গুরুতর জখম হয় এবং অচেতন হয়ে পড়লে তাকে সড়কে ফেলে রেখে যায় হামলাকারীরা। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে চিকিৎসক সুমন বিশ্বাস তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেরে-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। 

এ ঘটনায় পৌর শহরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ব্যবসায়ীরা দোকানপাট বন্ধ করে দেয়। হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে আমতলী চৌরাস্তায় বিক্ষোভ করে সড়ক অবরোধ করে উপজেলা ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও শ্রমিক লীগ নেতাকর্মীরা। এ সময় আমতলী চৌরাস্তায় শতাধিক পরিবহন গাড়ি আটকে পড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। পুলিশের আশ্বাসে আধা ঘণ্টা পর অবরোধকারীরা সড়ক থেকে অবরোধ তুলে নেয়।

আহত মোয়াজ্জেম খানকে বরিশাল নেওয়ার পথে স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, ছাত্রলীগ নেতা সবুজ ম্যালাকার, মো. ইফতেখার আহম্মেদ তোহা, শাহাবুদ্দিন সিহার, সুমন প্যাদা, রাকিব প্যাদা ও রুহুল আমিনসহ ১২ থেকে ১৫ জন আমাকে কুপিয়েছে। আমি এ ঘটনায় সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।  

আমতলী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সুমন খন্দকার জানান, তার বাম পা, মাথা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর জখম রয়েছে। প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

আমতলী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন সবুজ বলেন, ‘হামলার বিষয়টি আমি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে জানতে পেরেছি। তবে হামলার সঙ্গে কারা জড়িত সে বিষয়ে কিছু জানি না।’

আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) রনজিৎ কুমার সরকার জানান, উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতিকে কুপিয়ে জখমের ঘটনায় বিক্ষুব্ধরা সড়ক অবরোধ করেন। পরে তারা অবরোধ তুলে নেওয়ায় যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭১৪০৮০৩৭৮ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com