জয়িতারা সমাজের বাধা পেরিয়ে সফলতার প্রতীক: ইন্দিরা

প্রকাশ: ০৯ নভেম্বর ২২ । ১৮:৩১ | আপডেট: ০৯ নভেম্বর ২২ । ১৮:৩১

খুলনা ব্যুরো

খুলনা জেলা শিল্পকলা একাডেমি অডিটোরিয়ামে শ্রেষ্ঠ জয়িতাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী। ছবি-সমকাল

মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, বৈষম্যহীন ও সমতা ভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সরকার জয়িতাদের চিহ্নিত করে তাদেরকে সমাজে প্রতিষ্ঠিত করে তুলতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তারা সমাজের বাধা পেরিয়ে সফলতার প্রতীক।

বুধবার দুপুরে খুলনা জেলা শিল্পকলা একাডেমি অডিটোরিয়ামে বিভাগীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ জয়িতাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন। 

অনুষ্ঠানে ৫ জন শ্রেষ্ঠ জয়িতা এবং ৫ জন রানারআপ জয়িতাকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। প্রতিমন্ত্রী শ্রেষ্ঠ জয়িতাদের হাতে সম্মাননা স্মারক, নগদ অর্থ ও সনদ তুলে দেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশের ৮ বিভাগে ১০ তলা বিশিষ্ট জয়িতা ভবন নির্মাণ করা হবে। খুলনা, রাজশাহী ও চট্টগ্রামে এরই মধ্যে সেই কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এছাড়া প্রত্যেকটি জেলায় ছয় তলা বিশিষ্ট জয়িতা ভবন নির্মাণ করা হবে।

তিনি বলেন, নারীর অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নকে বেগবান করার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১১ সালে জয়িতা কার্যক্রমের সূচনা করেন। জয়িতার কার্যক্রম বিভাগ, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে ছড়িয়ে পড়েছে এবং নারীবান্ধব একটি বিপণন নেটওয়ার্ক গড়ে উঠেছে। জয়িতাকে কেন্দ্র করে তৃণমূল পর্যায়ে নারী উদ্যোক্তাদের মাঝে আত্মবিশ্বাস, উৎসাহ ও উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়েছে। 

খুলনা বিভাগের সম্মাননা প্রাপ্ত শ্রেষ্ঠ ৫ জয়িতা হলেন, অর্থনৈতিকভাবে সাফল্য অর্জনকারী নারী ক্যাটাগরিতে যশোর জেলার সালমা ইসলাম, শিক্ষা ও চাকরি ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনকারী সাতক্ষীরা জেলার জামিলা খাতুন, সফল জননী ক্যাটাগরিতে নড়াইল জেলার আলেয়া বেগম, নির্যাতনের বিভীষিকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যোমে জীবন শুরু করা খুলনা জেলার সন্ধ্যা রানী বিশ্বাস এবং সমাজ উন্নয়নে অসামান্য অবদান রাখায় খুলনা জেলার অ্যাডভোকেট গ্লোরিয়া ঝর্ণা সরকার।

খুলনা বিভাগীয় কমিশনার মো. জিল্লুর রহমান চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. হাসানুজ্জামান কল্লোল, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ফরিদা পারভীন ও খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হারুনুর রশীদ।

এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন জাতীয় মহিলা সংস্থার নির্বাহী পরিচালক আবেদা আক্তার, খুলনা জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার, বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মো. আজিজুর রহমান, সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক মো. হুমায়ুন কবীর ও যশোর জেলা প্রশাসক মো. তমিজুল ইসলাম খান।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২৩

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭১৪০৮০৩৭৮ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com