বিজয় কি-বোর্ড ব্যবহারকারীর জন্য বাধ্যতামূলক নয়: মোস্তাফা জব্বার

প্রকাশ: ২৫ জানুয়ারি ২৩ । ১৮:২৮ | আপডেট: ২৫ জানুয়ারি ২৩ । ১৮:২৮

সমকাল প্রতিবেদক

অ্যান্ড্রয়েড চালিত মোবাইল ফোনে বিজয় কি-বোর্ড ব্যবহারকারীর জন্য বাধ্যতামূলক নয় বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। 

বুধবার দুপুরে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে চলমান ডিসি সম্মেলনে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ সম্পর্কিত আলোচনা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মোস্তাফা জব্বার বলেন, আমি একটি ব্যাখ্যা দেব, সেটি হচ্ছে বিটিআরসি বিভ্রান্তিকর একটি শব্দ ব্যবহার করেছে বাধ্যতামূলক। অ্যান্ড্রয়েড ফোনে আপনি কোনো সফটওয়্যার রাখতে পারেন, ইনস্টল করতে পারেন, ফেলে দিতে পারেন, নতুন করেও ইনস্টল করতে পারেন। এখানে বাধ্যতামূলক শব্দ প্রয়োগ করার কিছু নেই। এটি বাধ্যতামূলক নয়।

উৎপাদক ও আমদানিকারকদের জন্য মুঠোফোনে বিজয় কিবোর্ড অ্যাপটি বাধ্যতামূলক বলা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, যেটি বলা হয়েছে, যিনি উৎপাদক অথবা আমদানিকারক, তিনি বাংলা লেখার সুবিধা তৈরি করে দেওয়ার জন্য একটি সফওয়্যার দিয়ে দেবেন। ব্যবহারকারী সেই সফটওয়্যার ব্যবহার করবে কি করবে না, সেটি সম্পূর্ণ তার এখতিয়ার।

সম্প্রতি সকল অ্যান্ড্রয়েড ফোনে বিজয় কি-বোর্ড ব্যবহারের বাধ্যবাধকতার বিষয়টি দেশের মুঠোফোন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে মনে করিয়ে দেয় বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। গত ১৩ জানুয়ারি কোম্পানিগুলোকে এ সংক্রান্ত চিঠিও দেয় সংস্থাটি।

চিঠিতে বল হয়, আমদানি করা ও স্থানীয়ভাবে উৎপাদন করা সব অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনে বিজয় এপিকে ফাইল ব্যবহারের লক্ষ্যে বিটিআরসির তরঙ্গ বিভাগ থেকে বিনা মূল্যে ফাইলটি দেওয়া হবে। স্মার্টফোনগুলো বাজারজাতকরণের অনুমতি নেওয়ার আগে এপিকে ফাইলটি ইনস্টল করে বিটিআরসিকে তা প্রদর্শন করতে হবে। অন্যথায় স্মার্টফোনগুলো বাজারজাতকরণের অনাপত্তি দেওয়া হবে না বলে চিঠিতে উল্লেখ করা হয়।

চিঠি দেওয়ার দিন থেকেই নির্দেশনাটি কার্যকর হবে বলে জানানো হয়েছে। একই সঙ্গে পরবর্তী ৩ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিষ্ঠানগুলোকে বিজয় অ্যান্ড্রয়েড এপিকে ফাইলটি সংগ্রহ করতে বলা হয়।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২৩

সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭১৪০৮০৩৭৮ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com