প্রবাস

আমিরাতের অবৈধ অভিবাসীদের

প্রকাশ: ০৫ ডিসেম্বর ২০১৮      

 ইউএই প্রতিনিধি

ফাইল ছবি

সংযুক্ত আরব আমিরাত সরকার অবৈধ অভিবাসীদের বৈধ হতে দ্বিতীয় দফায় সাধারণ ক্ষমার সময় আরও এক মাস বাড়িয়েছে। আরব আমিরাতের ৪৭তম জাতীয় দিবসের 'উপহার' হিসেবে এ সময় বাড়ানো হয়েছে বলে বিবৃতি প্রকাশ করে সংশ্নিষ্ট কর্তৃপক্ষ। আগের দু'দফা ও এবার মিলিয়ে সর্বমোট পাঁচ মাসে ঠেকেছে সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ।

মেয়াদ বাড়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে স্বস্তি নেমেছে প্রবাসীদের মধ্যে। দেশটির সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতাও প্রকাশ করেন সাধারণ ক্ষমার সুযোগপ্রত্যাশী প্রবাসীরা।

এ প্রসঙ্গে সংযুক্ত আরব আমিরাতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ডা. মুহাম্মদ ইমরান বলেন, জাতীয় দিবস উপলক্ষে বিশেষ বিবেচনায় সংযুক্ত আরব আমিরাত সরকার আবারও সময় বাড়িয়েছে। অবৈধ অভিবাসীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, যারা এখনও এই সুযোগ গ্রহণ করতে চান, তাদের আবারও অনুরোধ জানচ্ছি সুযোগটি গ্রহণ করে বৈধ হয়ে নিন। যাদের পাসপোর্ট দূতাবাসে আছে, দূতাবাস চেষ্টা করছে পাসপোর্টগুলো তাদের হাতে তুলে দেওয়ার। এ ছাড়া যাদের পাসপোর্ট আটকে আছে, সেগুলোও দ্রুত চলে আসবে।

রাষ্ট্রদূত জোর দিয়ে বলেন, যারা এখনও অবৈধ আছেন, তারা পাসপোর্ট গ্রহণ করে দ্রুত ভিসার বৈধতা নিয়ে এখানে থাকবেন। বৈধতা ছাড়া কোনোক্রমেই আমিরাতে অবস্থান করবেন না। যারা কোনো কারণে বৈধ ভিসা না পাবেন, তারা দয়া করে আউটপাস নিয়ে দেশে গিয়ে ফের নতুন করে প্রবাসে আসার চেষ্টা করবেন। দেশের ভাবমূর্তি বজায় রাখবেন এবং বাংলাদেশকে একটি সুশৃঙ্খল জাতি হিসেবে প্রতিষ্ঠা করবেন।

উল্লেখ্য, ১ আগস্ট থেকে প্রথমে ৯০ দিনের সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করা হলেও পরে এক মাস বাড়ানো হয়। এখন আরও এক মাস সময় বাড়ানো হলো। এ সময়ের মধ্যে আমিরাতে অবস্থানরত অবৈধ প্রবাসীরা যেমন বৈধতার সুযোগ পাবেন, তেমনি চাইলে দূতাবাস ও কনস্যুলেটের মাধ্যমে জেল-জরিমানা ছাড়া আউটপারমিট নিয়ে নিজ দেশে ফিরতে পারবেন।

বিষয় : সংযুক্ত আরব আমিরাত অভিবাসী প্রবাস