লন্ডনে পঙ্কজ ভট্টাচার্য

মৃত্যুর আগেই বঙ্গবন্ধু বলে গিয়েছিলেন সম্ভাব্য হত্যাকারীদের নাম

প্রকাশ: ১৪ নভেম্বর ২০১৯   

লন্ডন প্রতিনিধি

হত্যা ষড়যন্ত্র সম্পর্কে সতর্ক করার পরও বাঙালির প্রতি অন্ধবিশ্বাসী বিশাল হৃদয়ের বঙ্গবন্ধু তা উড়িয়ে দিয়েছিলেন। তবে নিজের অজান্তেই তিনি তার সম্ভাব্য হত্যাকারীদের নামও বলে গিয়েছিলেন। লন্ডনে এক স্মরণসভায় এ কথা বলেছেন ঐক্য ন্যাপের সভাপতি পঙ্কজ ভট্টাচার্য। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে তিনি আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন।

বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে পঙ্কজ ভট্টাচার্য বলেন, 'ক্ষণজন্মা এ মানুষটির জন্মই হয়েছিল মানুষের জন্য। ভিন্ন দলের কর্মী হলেও তার অভিভাবকত্ব আমরা পেয়েছি সব সময়। মুক্তিযুদ্ধ-পূর্ববর্তী সময়ে বঙ্গবন্ধু প্রায়ই জেলে কাটাতেন। অন্যান্য বন্দির মতো মাথা নিচু করে নয়, তাকে ঢোকাতে জেলের প্রধান গেট খুলে দিতে হতো। মূল গেট দিয়ে পাইপ হাতে মাথা উঁচু করে তিনি ঢুকতেন, আবার বের হওয়ার সময়ও পাইপ হাতে নিয়ে একইভাবে বের হতেন।'

মুজিবনগর সরকারের উপদেষ্টামণ্ডলীর অন্যতম সদস্য ন্যাপ সভাপতি প্রয়াত অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের স্মরণসভায় লন্ডনে এসে সম্প্রতি এসব কথা বলেন পঙ্কজ ভট্টাচার্য।

বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে জেল খাটার স্মৃতিচারণ করে পঙ্কজ ভট্টাচার্য বলেন, 'আমি তার সঙ্গে একবার একসঙ্গে ১৯ দিন জেল খেটেছি। ১৯ দিন পর আমি বের হব, বঙ্গবন্ধু তখনও একই জেলে। জেলারকে খবর দিয়ে বললেন, আমার ছোট ভাই জেল থেকে বের হবে ছোট্ট গেট দিয়ে নয়, বীরের বেশে মূল গেট দিয়ে। গেট খোলার ব্যবস্থা করুন। জেলকর্মীরা তাই করলেন। গেট দিয়ে বের হওয়ার আগে পেছনে হাতে রাখা একটা বেলী ফুলের মালা টপ করে আমার গলায় পরিয়ে দিলেন বঙ্গবন্ধু।'

স্মৃতিকাতর পঙ্কজ ভট্টাচার্য বলেন, 'যে গলায় বঙ্গবন্ধুর মতো মহামানব ফুলের মালা পরিয়ে দিলেন, সে গলায় কি আর কোনো মালার প্রয়োজন আছে? আমার রাজনৈতিক জীবনের অন্যতম শ্রেষ্ঠ স্বীকৃতি তো এটিই।'

পঙ্কজ ভট্টাচার্য বললেন, 'একদিন আমি বঙ্গবন্ধুকে জিজ্ঞেস করলাম, সেনাবাহিনীতে কারা আপনার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করতে পারে? বঙ্গবন্ধু বললেন, আমি জানি না। আমি তো কারও ক্ষতি করিনি। তবে ফারুক, রশিদ, ডালিম ও আরও একজন (নাম ভুলে গেছেন পঙ্কজ ভট্টাচার্য) এসেছিল আমার (বঙ্গবন্ধুর) কাছে। সেনাবাহিনী থেকে তাদের বহিষ্কার করা হয়েছে। তারা তাদের পুনঃঅন্তর্ভুক্তি চায়। আমি বলেছি, সেনাবাহিনীর নিয়ম তো আলাদা, আমি কী করব। তোরা বরং ব্যবসা-বাণিজ্য কিছু কর। তারা বলল, পয়সা পাব কোথায়? আমি বলেছি প্রয়োজনে অর্থমন্ত্রীকে বলব কিছু ব্যবস্থা করা যায় কি-না।'