ভিজিট ভিসা নিয়ে কর্মসংস্থানের খোঁজে সংযুক্ত আরব আমিরাতে যাওয়ার ক্ষেত্রে নতুন করে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে। বাংলাদেশ মিশন থেকে জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) নিবন্ধনের আহ্বান করার পর এমন ধোঁয়াশা দেখা দেয়। বিএমইটির ছাড়পত্র গ্রহণের বিষয়ে সঠিক তথ্য না পেয়ে অনেকে এখন বিচলিত।

আরব আমিরাতের রাজধানী আবুধাবিস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বাংলাদেশ থেকে ইউএই-তে যেতে ইচ্ছুকদের বিএমইটির নিবন্ধন করার পরামর্শ এবং দুবাই বাংলাদেশ কনস্যুলেটের লেবার উইং থেকে বিএমইটি করার আহ্বানের পর নিবন্ধন করতে অনেকে ঘুরছেন দপ্তরে দপ্তরে।

কিন্তু চট্টগ্রাম জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস বলছে, ভিজিট ভিসা নয় বরং বিএমইটির আইনে শুধু কর্মসংস্থান ভিসাধারীরা নিবন্ধন করতে পারেন। তবে আমিরাতে ভিজিট ভিসা নিয়ে অধিকাংশ যাত্রী বর্তমানে কর্মসংস্থানের সন্ধানে যাওয়ায় এই দ্বিধাদ্বন্দ্ব তৈরি হয়েছে বলে মত প্রকাশ করেন প্রবাসীরা।

চট্টগ্রাম জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ জহিরুল আলম মজুমদার সমকালকে বলেন, বিএমইটি আইনে শুধু কর্মসংস্থান ভিসাধারীরা নিবন্ধন পাবেন, ভিজিট ভিসাধারীরা নয়। ভিজিট ভিসাধারীদের বিএমইটির নিবন্ধন দিতে গেলে আইন সংশোধন করতে হবে। কারণ জনশক্তি ও টুরিস্ট এক বিষয় নয়।

দুবাই বাংলাদেশ কনস্যুলেটের লেবার কাউন্সিলর ফাতেমা জাহান বলেন, আমাদের কাছ থেকে যে সব এজেন্সি চাহিদাপত্রের সত্যায়ন নিয়েছে তাদের কর্মীরা বিএমইটি করে আসছে। যারা ‘ডিমান্ড লেটার’ নিয়েছে বিএমইটি করতে হলে তাদের রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে করতে হবে। সরাসরি কর্মসংস্থান ভিসা হলে বিএমইটির ওয়ান স্টপ সার্ভিসের মাধ্যমে স্টার্ট কার্ড পাওয়া যায়। তবে ভিজিট ভিসায় বিএমইটি স্মার্ট কার্ড পাওয়ার জন্য রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে আসতে হবে।

মন্তব্য করুন