যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক টিভি চ্যানেল ‘বাংলা চ্যানেল’ তৃতীয় বছরে পদার্পণ করেছে ।

এ উপলক্ষে নিউ ইয়র্কের উডসাইডে গুলশান টেরেস মিলনায়তনে গত ১৬ জুলাই আনন্দ-অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বাংলা চ্যানেল। নিউ ইয়র্কে বসবাসরত নানা পেশায় কর্মরত বাঙালিরা এই অনুষ্ঠানে যোগ দেন। যোগ দেন যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকজন রাজনীতিবিদ।

সেতার ও তবলার যুগলবন্দিতে উচ্চাঙ্গসঙ্গীতের মূর্ছনার পর শিশু শিল্পীরা ভায়োলিন ও হাওয়াই গিটারের সুরের ছন্দে মুগ্ধ করেন আগতদের।

এবছর বাংলা চ্যানেল প্রবর্তিত ‘ধ্রুবতারা’ সম্মাননা পেয়েছেন সুরকার শেখ সাদী খান, কণ্ঠশিল্পী রথীন্দ্রনাথ রায়, স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী শহীদ হাসান, চিকিৎসক মোহাম্মদ মেরাজুল হক সোহাগ এবং বাংলাদেশ সোসাইটি অফ নিউ ইয়র্ক। 

প্রথম তিন গুণীকে তাদের বর্ণাঢ্য কর্মজীবনের জন্য, চিকিৎসক মোহাম্মদ মেরাজুল হক সোহাগ এবং বাংলাদেশ সোসাইটি অফ নিউ ইয়র্ককে করোনাকালে মানবসেবায় অনন্য ভূমিকা রাখার জন্য এই সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে। 

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলা চ্যানেল-এর ভাইস প্রেসিডেন্ট ফৌজিয়া জে. চৌধুরী। এছাড়া শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বাংলা চ্যানেল-এর চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এ.কে. এম. ফজলুল হক এবং  বাংলা চ্যানেলের প্রেসিডেন্ট ও সিইও শাহ্ জে. চৌধুরী। আরও বক্তব্য রাখেন প্রবীণ সাংবাদিক সৈয়দ মোহাম্মদ উল্লাহ, ব্যবসায়ী এম. আজিজ, সদ্য নির্বাচিত কুইন্স ডিস্ট্রিক্ট কোর্টের বিচারক সোমা সাঈদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মুকিত চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা ফারুক হোসাইন, ডেমোক্রেট নেতা অ্যাটর্নি মঈন চৌধুরী, বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফখরুল আলম। 

কূটনীতিকদের মধ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশ মিশনের প্রেস মিনিস্টার নূর-ইলাহী মিনা এবং ওয়াশিংটন ডিসির বাংলাদেশ দূতাবাসের ফার্ষ্ট কাউন্সিলর শাহ আলম খোকন। 

বাংলা চ্যানেল-এর তিন বছরে পদার্পণ উপলক্ষে প্রকাশিত হয়েছে স্যুভেনির ‘পশ্চিমে প্রাচ্য’।