ট্রানজিটে এসে সংযুক্ত আরব আমিরাতে আটকে পড়া কুয়েত প্রবাসী বাংলাদেশিদের করোনার টিকা গ্রহণের সুযোগ মিলেছে। দূতাবাসের তৎপরতায় শনিবার দুবাইতে ৩৬ জন কুয়েত প্রবাসীকে ফাইজারের টিকা দেওয়া হয়। পর্যায়ক্রমে বাকিদেরও টিকা দেওয়ার কথা রয়েছে।

জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে দেশে আটকে পড়া প্রবাসীরা দুবাই হয়ে ট্রানজিট করে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইন শেষে কুয়েত ফিরতে পারতেন। কিন্তু ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝিতে দুবাইয়ের সঙ্গে কুয়েতের ফ্লাইট বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ট্রানজিট নেওয়া কুয়েতের কর্মীরা দুবাইতে আটকে পড়েন। এদের মধ্যে কেউ কেউ দেশেও ফিরে গেছেন। অনেকে এখনও আমিরাতে অবস্থান করছেন। বিষয়টি নজরে এলে আবুধাবিতে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আবু জাফর তাদের টিকা প্রদানের জন্য আমিরাত সরকারকে অনুরোধ করেন। পরিস্থিতি বিবেচনায় আমিরাত সরকার আটকে পড়া কুয়েত প্রবাসীদের টিকা প্রদানে সম্মতি দেয়।

দুবাই বাংলাদেশ কনস্যুলেটের লেবার কাউন্সিলর ফাতেমা জাহান সমকালকে বলেন, কুয়েতের ভিসাধারী কিছু কর্মী প্রায় পাঁচ মাসের বেশি সময় দুবাইতে আটকা পড়েছেন। টিকা দিতে পারলে তারা কুয়েত যেতে পারবেন, বার বার এমন অনুরোধ এলে রাষ্ট্রদূত আবু জাফর কূটনৈতিকভাবে এদের টিকা প্রদানের বিষয়ে আমিরাত সরকারের সম্মতি অর্জন করেন। প্রথম পর্যায়ে ৩৬ জনকে টিকা প্রদান করা হয়। ঈদের পর তাদের দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, আটকে পড়া যেসকল কুয়েত প্রবাসী এখনও টিকার জন্য আবেদন করেননি তারা শিগগিরই কনস্যুলেটের হোয়াটস অ্যাপ নম্বরে (০০৯৭১৫৬৪৩০৭৭৮০) আবদেন করতে পারবেন। তবে কুয়েতের ভিসাধারীদের আমিরাতে টিকা পাওয়ার শর্ত হচ্ছে তাদের অবশ্যই ভিজিট ভিসার মেয়াদ থাকতে হবে।

বিষয় : সংযুক্ত আরব আমিরাত করোনার টিকা

মন্তব্য করুন