সন্ধ্যা নামতেই সড়কের ল্যাম্পপোস্টগুলো কৃত্রিম আলো ছড়াতে শুরু করে। ঝলমল করে উঠে শহরটি। নদীর পানিতে সেই আলো প্রতিফলিত হয়ে আরও মনোমুগ্ধকর করে তোলে দুবাই শহর। এমনই মনোমুগ্ধকর সন্ধ্যায় শুক্রবার হোটেল শেরাটনে সাহিত্য ও সংস্কৃতির চর্চা করেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। 

ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফাউন্ডেশন ইউএই’র আয়োজিত এই সাহিত্য সন্ধ্যার নামকরণ করা হয় ‘গীতি-কাব্যে অরুণিমা’। 

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন জেবিন আহমেদ ও শারমিন আহসান। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল বিএম জামাল হোসেন। এছাড়াও বিশেষ অতিথি ছিলেন রাউজান উপজেলার সাংসদ এবিএম ফজলে করিম চৌধুরীর তনয় ফারাজ করিম চৌধুরী, বাংলাদেশ ইয়ুথ কালচারাল ফাউন্ডেশন ইউএই’র উপদেষ্টা শেখ ফরিদ আহমেদ, রবীন্দ্র সঙ্গীত শিল্পী ইয়াসমিন কালাম মেরুনা।

অনুষ্ঠানে কবিতা, লোকগীতি, দেশাত্ববোধক, রবীন্দ্র আর নজরুল সঙ্গীতের আয়োজন করা হয়। সেখানে কাদম্বরী দেবীর সুইসাইড নোট, ‘ওড টু জর্জ ফ্লয়েড’ পরিবেশন করা হয়। 

বিএম জামাল হোসেন বলেন, ‘আমরা শেকড় থেকে বিচ্যুৎ হলে গর্ব করার কিছুই থাকবে না। আমরা যেন শেকড়ের সন্ধান করি। আমাদের শেকড় বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ। আমাদের দেশ, আমাদের স্বাধীনতা। যিনি এই ভুখন্ড স্বপ্ন দেখেছেন, স্বপ্ন বাস্তবায়ন করেছেন সেই মহান নেতা শেখ মুজিবুর রহমানকে শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছি। তিনিই আমাদের বিশুদ্ধ সংস্কৃতি চর্চা করার সুযোগ করে দিয়ে গেছেন।’

ফারাজ করিম চৌধুরী বলেন, এই অনুষ্ঠান থেকে আমি যতটুকু শিখতে পেরেছি, আট-দশটি রাজনৈতিক অনুষ্ঠানে গেলেও এত অভিজ্ঞতা হতো না। আমাদের তরুণদের আধুনিক হতে বাধা নেই। তবে সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য ধরে রেখে আধুনিক হতে হবে। মনে রাখতে হবে, সংস্কৃতি বদল না করে বরং সংস্কৃতিকে ব্যবহার ও নিজেকে সঠিক নিয়মে রেখে এগিয়ে যেতে হবে।’

অনুষ্ঠান শেষে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয় এবং শেষে নৈশভোজের আয়োজন করা হয়।