আধ্যাত্মিক বাউল সাধক লালন সাঁইজির ১৩১তম তিরোধান দিবস উপলক্ষে লালন সন্ধ্যা নামের একটি অনুষ্ঠান হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে। 

সাধুসঙ্গ সাঁইজির বাণী ও গান নিয়ে কুষ্টিয়ার ফ্রেন্ড সোসাইটি নিউইয়র্ক এটি আয়োজন করে। ১৭ অক্টোবর সন্ধ্যায় জামাইকার স্টার কাবাবে এ অনুষ্ঠান থেকে বাংলাদেশে হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর একের পর এক হামলার তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়।

লালন শিল্পী মেলাল শাহ্ এ অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা এবং পরিচালনা করেন। তার গানে মুগ্ধ হয়েছে অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত উপস্থিতি অন্তত ৫০ জন লালন ভক্ত।

লালনের আখড়ায় বেড়ে ওঠা শিল্পী মেলাল শাহ বলেন, আমরা প্রতি বছর এ সাধুসঙ্গের আয়োজন করে যাব।

বিশেষ অতিথি অনিন্দিতা কাজী বলেন, লালন শাইজির সঙ্গে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের এত মিল আমি অবাক হয়ে যাই।

লেখক সাংবাদিক শামীম আল আমীন বলেন, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ও কাজী নজরুল ইসলামের মতো আমেরিকার কবি অ্যালেন গিন্সবার্গও লালনের দ্বারা প্রভাবিত ছিলেন।

তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে সাংবাদিক ও নাট্যকার তোফাজ্জল লিটন বলেন, দেশজুড়ে যদি লালন সাঁইজির বাণী এবং আদর্শ প্রচার করা হতো তাহলে বাংলাদেশে আজকে যে বর্বর ঘটনা ঘটছে তা ঘটতো না । আমরা আজকের অনুষ্ঠান থেকে বাংলাদেশের হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর যে বর্বর হামলা হয়েছে তার তীব্র প্রতিবাদ জানাই। 

উপস্থিত সবাই তার সঙ্গে সম্মতি জ্ঞাপন করেন। সংগঠনের সভাপতি শামীম হাসান এর সঞ্চালনায় লালন সন্ধ্যায় আরো বক্তব্য দেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ফজলুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, সহ-সভাপতি মোমিন হোসেন এবং প্রধান উপদেষ্টা আসাদুজ্জামান বাবু।