সংগঠনের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে ৩২ হাজার ডলার উত্তোলন করে নিয়ে যাওয়ার পর আকস্মিকভাবে অসাংগঠনিক প্রক্রিয়ায় ইসি কমিটি গঠনের প্রতিবাদে নারায়ণগঞ্জ ডিস্ট্রিক্ট অ্যাসোসিয়েশন অফ নর্থ আমেরিকার ব্যানারে সংগঠনের প্রবীণ-নবীন কর্মকর্তারা সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

রোববার দুপুরে নিউইয়র্ক শহরের জ্যাকসন হাইটসের এক রেস্টুরেন্টে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত অভিযোগপত্রে সংগঠনের বিদায়ী কমিটির সভাপতি মো. মির্জা ফরিদ উদ্দিন এবং সাধারণ সম্পাদক মো. আলী হোসেনের বিরুদ্ধে সংগঠনের ৩২ হাজার ডলার হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ করা হয়।

অভিযোগে বলা হয়, তারা কমিটি গঠনের পরপরই ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে অর্থ উত্তোলন করে নিয়ে যান এবং কোনো সভা না করে নির্বাহী কমিটির মেয়াদ পার করে দেন। এরপর আকস্মিকভাবে তারা অগঠনতান্ত্রিক ও বেআইনিভাবে একটি নতুন কমিটি বানিয়ে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে প্রবাসী নারায়ণগঞ্জবাসীদের প্রতি অবজ্ঞা ও অশ্রদ্ধা প্রদর্শন করেছেন বলে সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের সাবেক সভাপতি ও উপদেষ্টা এবং আহ্বায়ক কমিটির আহ্বায়ক নির্মল পাল। এ ছাড়া বক্তব্য রাখেন যুগ্ম-আহ্বায়ক ও সংগঠনের সাবেক সভাপতি আরশাদুল বারী আসাদ এবং মোহাম্মদ মজিবর। আরও বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাবেক সভাপতি ও উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা মতিউর রহমান, সাবেক সভাপতি ও উপদেষ্টা মোহাম্মদ মজিবর, বিদায়ী কমিটির সহ-সভাপতি মোস্তফা জামাল টিটো এবং লেখক ও সাংবাদিক দর্পণ কবীর। সংবাদ সম্মেলনে ছিলেন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা কোষাধ্যক্ষ নুরুজ্জামান মন্টু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান সেলিম, নূর বাবুল ও এ.কে.এম. নূরুল হক। 

লিখিত বক্তব্যে নির্মল পাল বলেন, ১৯৮৯ সালে গঠিত এই সংগঠনের প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠান হয় ২০১৯ সালের ২৫ আগস্ট। এই নির্বাচন প্রক্রিয়ার কারণে সংগঠনের তহবিলে ৩৭ হাজার ডলার জমা পড়ে, যা অতীতে কোনদিন দেখা যায়নি। নির্বাচন প্রক্রিয়ায় ইসি কমিটি গঠন যেমন গণতান্ত্রিক ও জবাবদিহিতামূলক নেতৃত্ব তৈরি করে, তেমনি সংগঠনের তহবিলে অর্থ আয়ের সুযোগও সৃষ্টি করে। এই সত্যকে ধারণ করি বলে, আমরা সংগঠনের কার্যক্রম এবং কমিটি গঠনে নির্বাচন অথবা সাধারণ সভায় সদস্যদের মতামতকে গুরুত্ব দেওয়ার কথা বলে আসছিলাম বিগত ফরিদ-আলী কমিটির কর্মকর্তাদের। 

তিনি বলেন, এছাড়া ফরিদ-আলী কমিটির নেতৃত্বাধীন সংগঠনের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে গচ্ছিত ৩২ হাজার ডলার সংগঠনের ভবন কেনার জন্য রেখে দেওয়ার কথাও বলে আসছিলাম। ফরিদ-আলী কমিটি কার্যক্রমের শুরুতে বিদায়ী কমিটির সভাপতি মির্জা ফরিদ উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক মো. আলী হোসেন রহস্যজনক কারণে কোষাধ্যক্ষ মো. আব্দুল কাদেরকে ব্যাংক অ্যাকাউন্টে সম্পৃক্ত করতে নানা টালবাহানা করতে থাকেন। এক পর্যায়ে জানা যায়, তারা ইসি কমিটির অনুমোদন না নিয়ে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে অর্থ তুলে নিয়ে গেছেন। এ ঘটনায় আমরা দুশ্চিন্তাগ্রস্থ হয়ে মির্জা ফরিদ উদ্দিন ও মো. আলী হোসেনের সঙ্গে কয়েক দফা কথা বললেও তারা ‘অর্থ তাদের কাছে আছে’ জানিয়ে সভা করতে রাজী হননি। তাদের নির্বাহী কমিটির দু’ বছরের মেয়াদকালে তারা আর ইসির সভাও করেননি। 

নির্মল পাল আরও বলেন, আপনাদের আরো জানাচ্ছি, গত মাসে একটি পত্রিকায় প্রকাশিত বিজ্ঞাপন ও স্যোশাল মিডিয়ায় প্রকাশিত লিফলেটের মাধ্যমে জানতে পারি, নারায়ণগঞ্জ ডিস্ট্রিক্ট অ্যাসোসিয়েশন অফ নর্থ আমেরিকা ইনক-এর নতুন কমিটি গঠিত হয়েছে। অতি গোপনে এবং নিয়মবহির্ভূতভাবে এবং স্বেচ্ছাচারিতায় গঠিত ওই কমিটির কর্মকর্তার মধ্যে সভাপতি পদে মির্জা ফরিদ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক পদে মোহাম্মদ শামীম আহমেদ ও সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে মোহাম্মদ আলী হোসেনের নাম দেখতে পাই। এই কমিটির মধ্যে এমন কিছু নাম দেখেছি, যারা কোনদিন এই সংগঠনের সদস্য ছিল না। সদস্য না হয়েই কী প্রক্রিয়ায় সমিতির কর্মকর্তা হয়ে গেছেন, তা বোধগম্য নয়। আরও বলতে হয়, এই সংগঠনে ৪ বছর ধরে জড়িত হয়েছেন ওপরে উল্লেখিত তিন কথিত কর্মকর্তা। তারা নিজ ঘরে বসে অবৈধ কমিটি বানিয়ে পত্রিকায় আমাদের নামে অশোভন কথাও বিজ্ঞাপন দিয়ে বলেছেন। আমরা কেউ ৩২ বছর, কেউ ২০ বছর, কেউ একযুগ ধরে সংগঠনের পেছনে সময়, অর্থ ও মেধা ব্যয় করেছি। আর তারা নতুন এসেই প্রবীণদের বিরুদ্ধে মানহানিকর কথা বলছেন। 

সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয়, নারায়ণগঞ্জ জেলা সমিতির আহ্বায়ক কমিটি সংগঠনের জন্য একটি ভবন কেনার উদ্যোগ নিয়েছে। সংগঠনের উপদেষ্টা নির্মল পালের কাছে গচ্ছিত ৮ হাজার ডলার ভবন কেনার ফান্ডে প্রদান করা হবে। এছাড়া বনভোজন করে ‘বনভোজন কমিটি’র কাছে প্রায় ২ হাজার ডলারও ভবন কিনতে ব্যবহার করা হবে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে জানানো হয়, সমিতির অর্থ আত্মসাত করার চেষ্টা করলে প্রয়োজনে আইনের আশ্রয়ও নেয়া হবে।