টেক্সাসের বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন হিউস্টনের (বিএএইচ) সাবেক চেয়ারপারসন ও ২০২০ সালের ফোবানার প্রেসিডেন্ট শাহ হালিম প্রেসিডেন্সিয়াল লাইফটাইম অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড-২০২১-এর জন্য মনোনীত হয়েছেন।

পুরস্কার হিসেবে তিনি পাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট স্বাক্ষরিত একটি সনদপত্র, একটি ফলক, সিলসহ প্রেসিডেন্সিয়াল অ্যাচিভমেন্ট মুদ্রা, কোটপিন, একটি হোয়াইট হাউজ প্রেসিডেন্সিয়াল পেন এবং প্রেসিডেন্সিয়াল সিলসহ একটি শ্যাম্পেনের গ্লাস।

শাহ হালিম ২৫ বছরের ধরে বাংলাদেশি অ্যাসোসিয়েশন এবং বাংলাদেশ আমেরিকান সেন্টারে স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে কাজ করছেন। বিএএইচ-এর চেয়ারপারসন হিসেবে কাজ করেছেন ছয় বছর। এসময় তিনি বাংলাদেশ-আমেরিকান সেন্টারকে গড়ে তুলতে অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন।

দীর্ঘ সময় থেকে তিনি হিউস্টনের মূলধারার অলাভজনক প্রতিষ্ঠান এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়গুলোর সঙ্গে জড়িত। বিগত সময়ে তিনি শত শত পরিবারকে সাহায্য করতে হিউস্টন ফুডব্যাংক গড়তে অবদান রাখেন। হার্ভি হিরোদের একজন হিসেবে তিনি ঘৃণা ছড়ানো গ্রুপগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া, অস্বচ্ছল পরিবারগুলোকে সহায়তা করা, সামাজিক অবিচারের বিরুদ্ধে সরব থেকে ৫০ সদস্যের একটি স্বেচ্ছাসেবী দলের নেতৃত্ব দিয়েছেন।

ব্যক্তিগত জীবনে তিনি ইনার সিটি রিয়েল এস্টেট ডেভেলপমেন্টে বিনিয়োগ করেছেন। করোনা মহামারি চলাকালে বাংলাদেশ ও উত্তর আমেরিকার বাংলাদেশি নাগরিকদের সহায়তার জন্য অর্থ সংগ্রহে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন।

শাহ হালিম স্বপ্ন পূরণে উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করতে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছিলেন। তিনি প্রখ্যাত শ্রমিক নেতা, সমাজকর্মী এবং বিজিএমইএ'র সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রয়াত শাহ আব্দুল হালিমের ছেলে। তিনি বাংলাদেশের গোপালগঞ্জ জেলার বাসিন্দা।