জর্ডানের রাজধানী আম্মানে বাংলাদেশ দূতাবাসে ই-পাসপোর্ট সেবার উদ্বোধন করেছেন দেশটিতে সফররত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। আম্মান দূতাবাস আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রবাসী বাংলাদেশির উপস্থিতিতে এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন মন্ত্রী। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের জনগণ এখন প্রযুক্তির সর্বোচ্চ সুবিধা ভোগ করছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০২০ সালের ২২ জানুয়ারি ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। এরই মধ্যে জর্ডানসহ ১১টি বৈদেশিক মিশন থেকে ই-পাসপোর্ট সেবা দেওয়া হচ্ছে। ক্রমান্বয়ে ৮০টি মিশন থেকে ই-পাসপোর্ট দেওয়া হবে। এ পর্যন্ত একজন বাংলাদেশিকেও পাসপোর্টের অভাবে দেশে ফিরে যেতে হয়নি, আর ফিরতেও হবেনা ইনশাআল্লাহ।

তিনি বলেন, বাংলাদেশি প্রবাসীরা যেন বিশ্বে নিরাপদে ও নির্বিঘ্নে বসবাস করতে পারে সেজন্য বাংলাদেশ সরকার কাজ করে যাচ্ছে। কারণ প্রবাসীর আয় বাংলাদেশের অর্থনীতির প্রাণ।

অনুষ্ঠানে ই-পাসপোর্ট নিয়ে দুজন প্রবাসী বাংলাদেশি সন্তোষ প্রকাশ করে বক্তব্য দেন। পরে মন্ত্রী আম্মান দূতাবাসের কার্যক্রম ঘুরে দেখেন ও দূতাবাসে স্থাপিত ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’ পরিদর্শন করেন।

বাংলাদেশ ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আইয়ূব চৌধুরী ও সুরক্ষা সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. আব্দুল্লাহ আল মাসুদ চৌধুরী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন। অনুষ্ঠানটি সভাপতিত্ব করেন জর্ডানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত নাহিদা সোবহান।