প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী ২০৪০ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে তামাকমুক্ত করতে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন শক্তিশালী ও সময়োপযোগী করার অনুরোধ জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

রোববার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে ‘তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন সময়োপযোগীকরণে নীতি-নির্ধারকদের কাছে প্রত্যাশা’ শীর্ষক এক সেমিনারে তিনি এ অনুরোধ জানান। সেমিনারের আয়োজন করে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ডেভেলপমেন্ট অরগানাইজেশন অব দ্য রুরাল পূয়র (ডরপ)।

মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নের্তৃত্বে আমরা স্বাধীন দেশ পেয়েছি। তার সুযোগ্য কন্যা ও প্রধানমন্ত্রীর নের্তৃত্বে ২০৪০ সালের মধ্যে তামাকমুক্ত বাংলাদেশ পাব। তাই তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন শক্তিশালী ও সময়োপযোগী করার জন্য স্বাস্থ্য, পরিকল্পনা, অর্থ, বাণিজ্য ও আইন মন্ত্রণালয়ের প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি। এছাড়া সব স্তরের সিগারেটের দাম একই স্তরে করার আহ্বান জানান তিনি।

সেমিনারে ডরপ-এর উপ-নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ জোবায়ের হাসান ছয়টি প্রস্তাব দেন। যেমন: জনসমাগম স্থান ও পাবলিক পরিবহনে ধূমপানের জন্য নির্ধারিত স্থান বিলুপ্ত করা, তামাক কোম্পানির সামাজিক দায়বদ্ধতা কার্যক্রম নিষিদ্ধ করা, তামাক পণ্যের প্রদর্শনী নিষিদ্ধ করা, ই-সিগারেট আমদানি ও উৎপাদন বন্ধ করা, প্যাকেটের গায়ে স্বাস্থ্য সতর্কবার্তা লেখার আকার ৫০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ৯০ শতাংশ করা।

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মকবুল হোসেন বলেন, তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের প্রতি সরকার খুবই আন্তরিক। জনসচেতনতা বাড়াতে গণমাধ্যম ও প্রচার মাধ্যমে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বিষয়ক বার্তা পৌঁছে দেওয়া হবে। অন্য ফসলের চেয়ে তামাক পণ্য উৎপাদনে কৃষক তিনগুণ লাভবান হয়, তাই তারা তামাক চাষ করে। তাদের এর ক্ষতিকর বিষয়ে অবহিত করে অন্য ফসলের উৎপাদনে উৎসাহ ও প্রণোদনা দেওয়া হলে তামাক চাষ কমবে।

ডরপের উত্থাপিত ছয়টি প্রস্তাবকে সমর্থন করে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব হোসেন আলী খন্দকার (জাতীয় তামাক নিয়ন্ত্রণ সেলের সমন্বয়কারী) বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নতুন যে খসড়া আইন তৈরি হয়েছে, তাতে ডরপের উল্লিখিত প্রস্তাবগুলো অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

ক্যাম্পেইন ফর টোব্যাকো ফ্রি কিডস (সিটিএফ) বাংলাদেশের লিড পলিসি অ্যাডভাইজার মোস্তাফিজুর রহমান তামাক নিয়ন্ত্রণে আইন সংশোধন করে তা দ্রুত বাস্তবায়নের অনুরোধ জানান।

সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন ডরপের চেয়ারম্যান আজহার আলী তালুকদার। এতে তামাকবিরোধী বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।