পাঁচ বছর আগে নেইমারের দলবদলে পুরো ফুটবল দুনিয়ায় আলোড়ন তুলেছিল। ২২২ মিলিয়ন ইউরোর বিশ্বরেকর্ড গড়ে বার্সেলোনা থেকে এ ব্রাজিলিয়ানকে দলে নিয়েছিল প্যারিস সেইন্ট জার্মেই। তাঁকে ধরে রাখতে সব চেষ্টাই করেছিল বার্সেলোনা। কিন্তু স্প্যানিশ ক্লাবটির সব চেষ্টা বিফলে গিয়েছিল পিএসজি প্রেসিডেন্ট নাসের আল খেলাইফির অর্থের কাছে।

একটা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ের স্বপ্ন পূরণের জন্য নেইমারকে দলে নিয়েছিল ফরাসি ক্লাবটি। বার্সেলোনায় লিওনেল মেসির ছায়া থেকে বের হয়ে ফুটবল বিশ্বে নিজের অবস্থানটাও জানান দিতে চেয়েছিলেন নেইমার নিজেও। কিন্তু গত পাঁচ বছরে পিএসজির যেমন চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ের স্বপ্ন পূরণ হয়নি, তেমনি করে নেইমারও পারেননি নিজের সেরাটা দিতে।

আল খেলাইফির সঙ্গে পিএসজি সমর্থকরাও হতাশ নেইমারের খেলায়। তাই ২০১৭ সালে দলবদলের বাজারে যুদ্ধ করে যে নেইমারকে দলে নিয়েছিল পিএসজি, তাদের কাছে সেই নেইমার এখন সৎ ছেলের মতো। প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ এই ব্রাজিলিয়ানকে গ্রীষ্মকালীন দলবদলে ফরাসি ক্লাবটি বিক্রি করে দিতে চায় বলে গুঞ্জন উঠেছে।

৩০ বছর বয়সী নেইমারের সঙ্গে পিএসজির চুক্তি ২০২৫ সালের জুন পর্যন্ত। তবে এল ইকুয়েপ জানিয়েছে, চুক্তি অনুযায়ী ১ জুলাইয়ে পিএসজিতে নেইমারের চুক্তির মেয়াদ স্বয়ংক্রিয়ভাবে বেড়ে ২০২৭ পর্যন্ত হবে। তার আগেই আলোচনার মাধ্যমে নেইমারকে ছেড়ে দিতে চায় পিএসজি। আর সেটা হলে ব্রাজিলিয়ান তারকাকে নিজের ক্লাব চেলসিতে চান থিয়াগো সিলভা।

জাতীয় দল ও পিএসজি থাকাকালীন একসঙ্গে খেলায় দু'জনের মধ্যে বোঝাপড়াটাও দারুণ। তাই পিএসজি ছাড়লে নেইমারের চেলসিতেই আসা উচিত বলে মনে করেন সিলভা, 'তার চেলসিতে আসা উচিত। সে যদি পিএসজি ছাড়ে, তাহলে এখানে আসা ঠিক হবে। যদি তা হয়, তাহলে সম্ভাব্য ভালো কিছুর প্রত্যাশা করা যেতে পারে।'