পর্তুগালের লিসবন বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈজ্ঞানিক পুরস্কার ২০২২ এ মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং, নেভাল ইঞ্জিনিয়ারিং ও অ্যারোস্পেস ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে দক্ষতার ভিত্তিতে পুরস্কৃত হয়েছেন প্রথম বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত লিসবন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এস এম সোহেল মুর্শেদ।   

প্রকৌশলের এ তিনটি ক্ষেত্রে বহুসংখ্যক অধ্যাপক ও গবেষকদের মধ্যে তিনিই একমাত্র এ পুরস্কার পেলেন। 

বিজ্ঞানের বিভিন্ন ক্ষেত্রে অসামান্য বৈজ্ঞানিক অবদান ও প্রভাবের জন্য পর্তুগালের লিসবন বিশ্ববিদ্যালয় এই পুরস্কার দিয়ে থাকে। এর জন্য সম্মানসূচক ডিপ্লোমা ও পুরস্কার হিসেবে নগদ অর্থ দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে অধ্যাপক সোহেল মুর্শেদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তিনি বিশ্বের শীর্ষ শতকরা ২ ভাগ বিজ্ঞানীদের মধ্যে টানা তৃতীয় বছর আবারও স্থান করে নিয়েছেন। সেইসঙ্গে তিনি ইম্পেরিয়াল কলেজ লন্ডন এবং রচেস্টার ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজিসহ বিশ্বের বেশ কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিজিটিং প্রফেসর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। পাশাপাশি সিঙ্গাপুর ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পোস্ট ডক্টরাল ফেলো হিসেবেও কাজ করেছেন। 

এছাড়া তিনি জানান, তার গ্রামের বাড়ি নড়াইল জেলায়। তিনি নড়াইলের মাইজপারা বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক, ঢাকা রেসিডেন্সিয়াল মডেল কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রুয়েট) থেকে বিএসসি ও বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) থেকে এমএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং সম্পন্ন করে সিঙ্গাপুরের নানইয়াং টেকনোলজি ইউনিভার্সিটি থেকে ম্যাকানিক্যাল এবং অ্যারোস্পেস ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন।